বৃহস্পতিবার, ১৬ অগাস্ট ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ১ ভাদ্র ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

থাইরয়েড রোগের ভয়াবহতা!



লাইফস্টাইল ডেস্ক::থাইরয়েড গ্রন্থি একটি এনড্রোক্রাইন গ্ল্যান্ড। এটা মানুষের গলার সামনে অবস্থিত। এখান থেকে থাইরয়েড হরোমন তৈরি হয়। এই হরমোন শরীরের সব রেচন প্রক্রিয়ায় সাহায্য করে।

বাচ্চাদের ক্ষেত্রে শারীরিক ও মানসিক বিকাশে বিশেষ ভূমিকা রাখে। থাইরয়েড গ্রন্থি ঠিকমতো কাজ না করলে শারীরিক এবং মানসিক বৃদ্ধি ব্যহত হয়। একজন শিশু যদি ছোট বেলা থেকে এর অভাবে ভোগে তাহলে সে প্রতিবন্ধী হয়ে বড় হবে। যদি তাকে চিকিৎসা দেওয়া না হয়। সে বুদ্ধি ও শারীরিক প্রতিবন্ধী হয়ে যাবে।

থাইরয়েডের বিভিন্ন রোগ আছে। এর মধ্যে অনেকে শুধু গলাফোলা নিয়ে আমাদের কাছে আসে। একে আমরা গয়েটার বলি। এরপর যদি হাইপার থাইরয়েডের সমস্যা হয়, তাদের ওজন কমে যায়, বিরক্তবোধ থাকে, রাগ থাকে, মেজাজ খারাপ থাকে। তারা অনেক খায়, তবে ওজন বাড়ে না। ঘামে বুক ধরফর করে। এটি হলো হাইপার থাইরয়েড।

অন্যদিকে হাইপোথাইরয়েড হলো, সে দৈনন্দিন কার্যক্রম করতে পারে না। সে নিজেকে গুটিয়ে নেয়। তার ভালো লাগে না। শরীরে ব্যথা করে। ঘুম ঘুম লাগে। শীত লাগে। হাইপোথাইরয়েড রোগের সংখ্যা হলো প্রায় দুই শতাংশ। আমাদের দেশে প্রায় ৩০-৪০ লাখ লোক হাইপোথাইরয়েডে ভুগছে।

এ ছাড়া থাইরয়েড ক্যানসার, থাইরয়েডাইটিস, গর্ভাবস্থায় থাইরয়েডের জটিলতা, বন্ধ্যত্ব, গর্ভপাত, গর্ভাবস্থায় অন্যান্য সমস্যা হাইপোথাইরয়েডের কারণ। থাইরয়েড গ্রন্থির রোগগুলোকে মোটামুটি পাঁচটি ভাগে ভাগ করা যায়:

ক) থাইরয়েড গ্লান্ডের অতিরিক্ত কার্যকারিতা বা হাইপারথাইরয়েডিজম।

খ) থাইরয়েড গ্লান্ডের কম কার্যকারিতা বা হাইপোথায়রয়েডিজম।

গ) গলগণ্ড রোগ বা ঘ্যাগ।

ঘ) থাইরয়েড গ্লান্ডের প্রদাহ বা থাইরয়েডাইটিস।

ঙ) থাইরয়েড গ্লান্ডের ক্যান্সার হাইপারথাইরয়েডিজমের কারণ।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত