সোমবার, ১২ নভেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ২৮ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

প্রতিশোধ নিতে হাসানকে হত্যা করে গাড়ি চালক



নিজস্ব প্রতিবেদক: মৌলভীবাজারের বড়লেখায় তাপ্পরের প্রতিশোধ নিতে স্কুল ছাত্র আব্দুল্লাহ হাসানকে (১৫) নির্মমভাবে খুন করে তার প্রাইভেট গাড়ী চালক এরশাদ মিয়া (৩৭)। হত্যাকান্ডের ব্যপারে গতকাল ২৩ মে বড়লেখার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্র্যাট আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে এরশাদ।
বৃহস্পতিবার বিকেলে সাংবাদিকদের এই তথ্য জানান পিবিআই এর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শাহাদাত হোসেন।
সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, গাড়ী পার্ক করতে গিয়ে গত বছরের অক্টোবর মাসে দক্ষিণ শাহবাজপুর ইউনিয়নের মোহাম্মদনগর গ্রামের সৌদি আরব প্রবাসী আব্দুর রহিমের ছেলে এবং সিলেটের মোগলাবাজারস্থ মনির আহমদ একাডেমির নবম শ্রেণির ছাত্র আব্দুল্লাহ হাসানের পায়ের উপর গাড়ির চাকা উঠিয়ে দেয় চালক এরশাদ। এসময় হাসান গাড়ী চালক এরশাদকে ৩/৪ টি চড়-তাপ্পড় মারে এবং গালিগালাজ করে। এরপর গত ১৮ জানুয়ারি রাতে জরুরী কথা আছে বলে হাসানকে নির্জন টিলায় নিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে গাড়ী চালক এরশাদ। এর আগে সে তার পরিবারের সবাইকে ঢাকা পাঠিয়ে দেয়। সেও গত এপ্রিলে চাকুরী ছেড়ে দেয়।
আরোও জানা যায়, ছেলে নিখোঁজের সংবাদ পেয়ে ২৩ জানুয়ারি দেশে ফিরেন পিতা আব্দুর রহিম। নিখোঁজের ১০ দিন পর ২৮ জানুয়ারি রাতে মোহাম্মদনগর এলাকার একটি নির্জন টিলার ঢালু স্থানে আব্দুল্লাহ হাসানের খন্ডিত পচা লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় ৩০ জানুয়ারি নিহতের বাবা প্রবাসী আব্দুর রহিম পূর্ব শত্রুতার বিষয়টি মাথায় রেখে ৬ জনকে আসামি করে বড়লেখা থানায় হত্যা মামলা করেন। পুলিশ আসামীদের গ্রেফতার করে রিমান্ডেও নেয়। বর্তমানে ৫ আসামী জামিনে আছেন।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত