মঙ্গলবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ২৯ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

প্রধানমন্ত্রীর উপহার পেয়ে উৎফুল্ল কমলগঞ্জের ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী জনজাতির শিক্ষার্থীরা



রুপম আচার্য্য: মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার চাম্পারাই, কুরমা,পাত্রখোলা,মাধবপুর চা বাগানের কলেজে অধ্যায়নরত ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীভূক্ত শিক্ষার্থীরা অসচ্ছল থাকায় অত্যধিক পরিবহন ব্যয় নির্বাহ করতে না পেরে কমলগঞ্জ ডিগ্রী কলেজ ও কমলগঞ্জ আব্দুল গফুর মহিলা কলেজে ইচ্ছা থাকা সত্বেও নিয়মিত ক্লাস করতে পারে না শতাধিক ছাত্রছাত্রী। এর ফলে লেখাপড়ায় ছেদ ও অনিয়মিত হয়ে পড়ছে শিক্ষার্থীরা।
কমলগঞ্জ উপজেলাকে শিক্ষার উন্নয়নে কাজ করতে গিয়ে শিক্ষার্থীদের এমন গড় অনুপস্থিতির দিকে দৃষ্টিপাত ও প্রতিবন্ধকতাগুলো চিহ্নিত করেন কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মাহমুদুল হক। এতে দেখা যায়, অনুপস্থিতির প্রধান কারন হলো যাতায়াত ব্যবস্থা। প্রতিদিন কলেজে আসতে হলে মাথাপিছু যাতায়াত খরচ হয় প্রায় ১০০ টাকা।
এ বিষয়টি নিয়ে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য, কমলগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান অধ্যাপক মো.রফিকুর রহমান ও কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাপারস্পরিক পরামর্শক্রমে করণীয় নির্ধারণ করে মৌলভীবাজার জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে একটি আবেদন পত্র প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে প্রেরণ করেন। এ ব্যাপারে অধ্যাপক মো. রফিকুর রহমান মোবাইল ফোনে এ প্রতিবেদককে জানান, ‘কমলগঞ্জ উপজেলায় ক্ষুদ্র নৃগোষ্টি শিক্ষার্থীদের জন্য বাস বরাদ্দ করার আবেদন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মাহমুদুল হক মৌলভীবাজার জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে প্রেরণ করেন। অবশেষে আমি, প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের পরিচালকের সাথে সাক্ষাৎ করে এ বিষয়ে জোর দাবী জানালে, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর তরফ হতে শিক্ষার্থীদের কলেজে যাতায়াতের জন্য একটি বাস উপহার দেন। এজন্য কমলগঞ্জবাসীর পক্ষ থেকে জননেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আন্তরিক কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করছি পাশাপাশি, আমার উপজেলার মেধাবী নির্বাহী কর্মকর্তার কর্মউদ্দীপনাও বিশেষ প্রশংসনীয়।’
এ বাস পেয়ে শিক্ষার্থীরা প্রধানমন্ত্রীর প্রতি শ্রদ্ধাভরে কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করে এবং তাদের মধ্যে খুশির ঝিলিক দেখা যায়।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত