শুক্রবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৬ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

“জোড়াতালি নয় বন্যার স্থায়ী সমাধান চাই”




ওমর ফারুক নাঈম: মৌলভীবাজারে মনু ও ধলাই নদী খনন ও স্থায়ী বাধ নির্মানের মাধ্যমে বন্যা সমস্যার সমাধানের দাবীতে পানি ভবনের সামনে অবস্থান কর্মসূচী করছে মৌলভীবাজারবাসী। বুধবার সকাল ১১টা থেকে পানি উন্নয়ন বোর্ড মৌলভীবাজার কার্যালয়ের সম্মুখ সড়কে ‘মনু ও ধলাইপাড়ের জনগোষ্ঠি’র বন্যারে এই অবস্থান কর্মসূচি দুপুর ১টায় সম্পন্ন হয়। উপস্থিত ছিলেন জেলার সর্বস্থরের কয়েক হাজার জনসাধারণ। ‘মনু বাঁচাও, ধলাই বাঁচাও, বাঁচাও প্রতিবেশ” এই স্লোগান নিয়ে বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতাকর্মীরা খন্ড খন্ড মিছিল সহকারে একত্রিত হয়ে এই কর্মসুচিতে অংশগ্রহন করেন।
“বন্যা থেকে বাঁচতে হলে নদী, খাল জলাশয় খনন করতে হবে”, “মনু ও ধলাই নদী বাচাও”, “শহররে রক্ষা করতে হলে মনু ও ধলাই নদীর পাশাপাশি গোপলা নদী খনন করতে হবে”, “সকল নদ-নদীর ভরাট খাল খনন করতে হবে”সহ বিভিন্ন স্লোগানের ফেস্টুন নিয়ে জনসাধারণ উপস্থিত ছিলেন। কয়ছর আহমদের পরিচালনায় ও পরিবেশ আন্দোলনের সভাপতি আ.স.ম ছালেহ সোহেলের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আজিজুর রহমান, জেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি নেছার আহমদ, পৌর মেয়র মোঃ ফজলুর রহমান, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান মিজান, বিশিষ্ট রাজনীতিবীদ আব্দুল মালিক তরফদার ভিপি সুয়েব, বিশিষ্ট শিল্পপতি এম. এ রহিম সিআইপি, প্রেসক্লাব সভাপতি আব্দুল হামিদ মাহবুব, সাধারণ সম্পাদক সালেহ এলাহী কুটি, জেলা পরিষদ সদস্য সৈয়দা জেরিন আক্তার, জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি আশিক মোশারফ, সাংবাদিক বকসি মিছবাহ উর রহমান, জেলা জাসদের সাধারণ সম্পাদক নাজিম উদ্দিন নজরুল, বিজনেস ফোরামের সবাপতি নুরুল ইসলাম কামরান, সাধারণ সম্পাদক শাহাদাত হোসেন, ব্যবসায়ী সুমন আহমদ, এমদাদুল হক মিন্টু, এম মুহিবুর রহমান মুহিব, ছাতনেতা জাকের আহমদ অপু, জুবায়ের আলী আহমদ, এম.এ সামাদ ও চৌধুরী মোহাম্মদ মেরাজসহ অন্যান্যরা।
এসময় বক্তারা বলেন, “দীর্ঘদিন ধরে খনন না করায় মনু ও ধলাই নাব্যতা হারিয়েছে। মেরামত না করায় প্রতিরক্ষা বাঁধগুলোও দূর্বল। অযার ফলে এই জেলা প্রতিবছরই বন্যাক্রান্ত হচ্ছে। ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে ঘরবাড়ি ক্ষেত কৃষিসহ হাজার কোটি টাকার সম্পদ। এবছর আকস্মিক বন্যায় মনু, ধলাই ও কুশিয়ারার ভেঙ্গে যাওয়া বাঁধ এখনো মেরামত না হওয়ায় ফের বন্যা ঝুঁকিতে রয়েছেন এজেলার লক্ষ লক্ষ মানুষ। ঝুকিতে রয়েছে মৌলভীবাজার জেলা শহরও। আমরা এ থেকে পরিত্রাণ চাই। আর জোড়াতালি নই বন্যার স্থায়ী সমাদান চাই।”
অবস্থান কর্মসূচিতে সংহতি প্রকাশ করে অংশগ্রহনকারীরা বলেন, “এ জেলাকে বন্যা সমস্যা থেকে স্থায়ীভাবে সমাধানের জন্য অবিলম্বে মনু ও ধলাই নদী খনন এবং স্থায়ী বাঁধ নির্মাণে প্রকল্প গ্রহণ ও বাস্থবায়ন, জেলার অন্যান্য নদ-নদী ও হাওরের ভরাট হওয়া বিলসমুহ খননের জোড়াল দাবি জানান। ক্ষমতাসীন দলের নেতৃবৃন্দরা বিভিন্ন আশ্বস প্রদান করে আন্দোলনে একাত্বতা পোষণ করেন। ”
কর্মসুচী শেষে জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর কাছে নানা দাবি দাওয়া সংক্রান্ত স্মারকলিপি প্রেরণ করা হয়। গেল বছরের বন্যা ও দীর্ঘ জলাবদ্ধতার পর এবছরও সাম্প্রতিক বন্যায় মৌলভীবাজারে মনু, ধলাই ও কুশিয়ারা নদীর ৩৮টি স্থানে ভাঙ্গনের ফলে সৃষ্ট বন্যায় ৪টি উপজেলার ২টি পৌরসভাসহ ৪০টি ইউনিয়নের প্রায় চার লক্ষাধিক মানুষ ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছেন। বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে হাজারো কোটি টাকার সম্পদ।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত