শনিবার, ২০ অক্টোবর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

৯ সেপ্টেম্বর লন্ডনের ভিক্টোরিয়া পার্কে সপ্তম মুসলিম চ্যারিটি রানের মিলন মেলা



বিশেষ প্রতিবেদক::

আর মাত্র ক’দিন। ৯ সেপ্টেম্বর রোববার সকাল সাড়ে ১০টায় পূর্ব লন্ডনের ভিক্টোরিয়া পার্কে বসছে মুসলিম চ্যারিটি রানের সপ্তম মিলন মেলা। ইস্ট লন্ডন মসজিদ আয়োজিত ৫ কিলোমিটার চ্যারিটি রানকে সফল করতে চলছে ব্যাপক প্রস্তুতি। ইতোমধ্যে বিপূলসংখক মানুষ চ্যারিটি রানে অংশগ্রহণের জন্য নাম রেজিস্ট্রেশন করেছেন। প্রতিদিনই চলছে রেজিস্ট্রেশন কার্যক্রম।

চ্যারিটি রানকে সফল করতে ৩১ আগস্ট শুক্রবার বিকেলে ইস্ট লন্ডন মসজিদের বারাকা খান ভিজিটিং গ্যালারীতে আয়োজন করা হয় মুসলিম চ্যারিটি রানের মিডিয়া লঞ্চ।
ইস্ট লন্ডন মসজিদের ডাইরেক্টর দেলওয়ার খানের পরিচালনায় এতে বক্তব্য রাখেন মসজিদের সেক্রেটারি আইয়ূব খান। এসময় উপস্থিত ছিলেন ইস্ট লন্ডন মসজিদের ট্রেজারার মোহাম্মদ আব্দুল মালিক। অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিলের ডেপুটি মেয়র সিরাজুল ইসলাম, নিউহ্যাম কাউন্সিলের ডেপুটি স্পীকার ব্যারিস্টার নাজির আহমদ, লন্ডন বাংলা প্রেস ক্লাবের প্রেসিডেন্ট সৈয়দ নাহাস পাশা, সাবেক প্রেসিডেন্ট নবাব উদ্দিন, বৃটিশ বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্সের প্রধান উপদেষ্টা প্রফেসর শাহগীর বখত ফারুক, বিশিষ্ট কমিউনিটি নেতা সাংবাদিক কে এম আবু তাহের চৌধুরী, গ্রেটার সিলেট কাউন্সিলের প্রেসিডেন্ট ব্যারিস্টার আতাউর রহমান, ক্যানারী ওয়ার্ফ গ্রুপের ডাইরেক্টর জাকির খান, সোসাইটি অব বৃটিশ-বাংলাদেশী সলিসিটর্স এর সেক্রেটারি খালেদ সাইফুল্লাহ, কাউন্সিল অব মস্ক টাওয়ার হ্যামলেটসের সেক্রেটারি জেনারেল হীরা ইসলাম, টিভি প্রেজেন্টার আজমাল মাসরুর, হোয়াইটচ্যাপেল ওয়ার্ডের কাউন্সিলার ফারুক মাহফুজ, বাংলাদেশ ফুটবল এসোসিয়েশন ইউকের প্রেসিডেন্ট আরজ মিয়া, চ্যানেল এস’র আমার গাঁও অনুষ্ঠানের প্রেজেন্টার সায়েক আহমদ, গ্লোবাল এইড ট্রাস্টের সিইও এএসএম আশরাফ মাহমুদ, মুনতাদা এইড এর ভলান্টিয়ার কো-অর্ডিনেটর আদিল নাহদী।

এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ইস্ট লন্ডন মস্কের ট্রাস্টি সিরাজুল ইসলাম, সলিসিটর দেওয়ান মাহদী চৌধুরী, ব্যারিস্টার খালেদ নূর, সাপ্তাহিক সম্পাদক তাইসির মাহমুদ, মাসিক দর্পণ সম্পাদক রহমত আলী, এনটিভির চীফ রিপোর্টার আকরামুল হোসাইন, সাপ্তাহিক পত্রিকার বিশেষ প্রতিনিধি মতিউর রহমান চৌধুরী, সাপ্তাহিক ইউরোবাংলার সাবেক সম্পাদক আব্দুল মুনিম জাহিদী ক্যারল, এটিএন বাংলার সিনিয়র রিপোর্টার মোস্তাক বাবুল, টিভি ওয়ান এর সিনিয়র রিপোর্টার জাকির হোসাইন কয়েস, লন্ডন বাংলা প্রেস ক্লাবের কমিউনিকেশন সেক্রেটারি মোঃ আব্দুল কাইয়ূম, টিভি ওয়ান এর প্রেজেন্টার তানিম আহসান, ফ্রিল্যান্স সাংবাদিক ফজলুল হক, সাপ্তাহিক বাংলা পোস্টের সহ সম্পাদক জয়নাল আবেদীন, মুসলিম হ্যান্ডস এর ফান্ডরেইজিং ম্যানেজার ইসলাম উদ্দিন ও বাংলাদেশ রিজেনারেশনের ট্রাস্টের ট্রাস্টি নাজির আলী।

অনুষ্ঠানে ইস্ট লন্ডন মসজিদের সেক্রেটারি আইয়ূব খান ৯ সেপ্টেম্বর সকলকে স্বপরিবারে ভিক্টোরিয়া পার্কে আসার আহবান জানান। তিনি জানান ইতোমধ্যে প্রত্যেক অংশগ্রহণকারীর জন্য মুসলিম চ্যারিটি রানের লগো খচিত টি-শার্ট ও মেডেল প্রস্তুত করা হয়ে গেছে। এখন শুধু অপেক্ষার পালা। কবে আসবে এই আনন্দঘন দিনটি। তিনি আরো জানান, ২০১৫ সালে রান ফর ইউর মস্ক মুসলিম চ্যারিটি রানে রূপান্তরিত হওয়ার পর থেকে ইস্ট লন্ডন মসজিদ শুধু এটি ব্যবস্থাপনার দায়িত্ব পালন করে আসছে। শুধু ব্যবস্থাপনা বাবদ জনপ্রতি ২০ পাউন্ড ফি নেওয়া হয়। তিনি বলেন, মুসলিম চ্যারিটি রানে শিশু কিশোরদের জন্য থাকবে বাউন্সি ক্যাসেল, বাংগি রান, গ্লাডিয়েটর ইত্যাদি খেলাধূলার ব্যবস্থা। তাছাড়া বড়দের জন্য থাকবে হেলথ স্টোর যেখানে ফ্রি চেক আপের ব্যবস্থা থাকবে।

৬টি বয়স ক্যাটাগরিতে এই চ্যারিটি রান অনুষ্ঠিত হচ্ছে। অনুর্ধ বারো, তেরো থেকে সতেরো, আটারো থেকে চবিবশ, পঁচিশ থেকে চৌত্রিশ, পয়ত্রিশ থেকে পঞ্চাশ এবং একান্নো ও ততোর্ধ বয়সীরা অংশগ্রহণ করতে পারবেন। প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থান অর্জনকারী বিজয়ীকে ট্রফি প্রদান করা হবে।

উপস্থিত অতিথিদের অধিকাংশই মুসলিম চ্যারিটি রানে অংশগ্রহণের আশাবাদ ব্যক্ত করেন। তাঁরা বলেন, এই ফান্ডরেইজিং কর্মসূচি বছরের একটি দিনের জন্য একটি মিলনমেলায় পরিনত হয়েছে। কমিউনিটির ছেলে বুড়ো যুবকদের একটি মহতি কাজে একই ছাতার নিচে জড়ো হওয়ার সুযোগ করে দিয়েছে ইস্ট লন্ডন মসজিদ। এ জন্য ইস্ট লন্ডন মস্ক মসজিদ প্রসংসা প্রাপ্তির দাবীদার। তাঁরা বলেন, মুসলিম চ্যারিটি রান একদিকে যেমন ফান্ডরেইজ করার সুযোগ করে দিচ্ছে অন্যদিকে নিজেরে স্বাস্থ্য সুরক্ষায় উদ্ধুদ্ধ করছে। আমাদের প্রত্যেকের এতে অংশগ্রহণ করা উচিত।

উল্লেখ্য, ২০১২ সালে শুরু হওয়ার পর প্রতি বছরই সফলতার সাথে এই চ্যারিটি রান পরিচালিত হয়ে আসছে। প্রথম তিন বছর রান ফর ইউর মস্ক নামে এই চ্যারিটি রান পরিচিত ছিলো। তখন শুধু ইস্ট লন্ডন মসজিদের জন্য ফান্ডরেইজ করা হতো। ২০১৫ সালে মুসলিম চ্যারিটি রান নামকরণের পর অংশগ্রহণকারীরা নিজের পছন্দের যেকোনো চ্যারিটির জন্য ফান্ডরেইজ করতে পারছেন। এখন আর শুধু ইস্ট লন্ডন মসজিদের মধ্যেই এই চ্যারিটি কার্যক্রম সীমাবদ্ধ নয়। এখন এর কার্যক্রম বিস্তৃত দেশব্যাপী। যেকেউ যে কোনো অনুমোদিত চ্যারিটির জন্য ফান্ডরেইজ করতে পারছেন।

এ ব্যাপারে আরো বিস্তারিত জানতে অথবা রেজিস্ট্রেশন করতে www.muslimcharityrun.co.uk ওয়েবসাইট ভিজিট করতে অথবা ০২০ ৭৬৫০ ৩০০০ নাম্বারে ফোন করতে অনুরোধ জানিয়েছেন মুসলিম চ্যারিটি রানের কো-অর্ডিনেটর ও ইস্ট লন্ডন মসজিদ এন্ড লন্ডন মুসলিম সেন্টারের সিনিয়র ফান্ডরেইজিং অফিসার তজম্মুল আলী।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত