বুধবার, ১৯ ডিসেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ পৌষ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

বড়লেখায় ভারতীয় পাগলা মহিষের আক্রমণে আহত ২, মহিষটিকে কুপিয়ে হত্যা



ডেস্ক রিপোর্টঃ

মৌলভীবাজারের বড়লেখায় ভারতীয় পাগলা মহিষের আক্রমণে দুজন আহত হয়েছেন। বৃহম্পতিবার (১১ অক্টোবর) সকালে বড়লেখা সদর ইউনিয়নের গ্রামতলা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। আহতরা হচ্ছেন- গ্রামতলা গ্রামের ইব্রাহিম আলীর মেয়ে ফাতেমা বেগম (১৮) ও একই এলাকার আব্দুল বারীর ছেলে আব্দুস শহীদ (৫০)। এর মধ্যে ফাতেমা বেগমকে সিলেটের একটি হাসপাতালে আর আব্দুস শহীদকে বড়লেখা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

এ ঘটনার পর থেকে এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ও থানা পুলিশ সেখানে অবস্থান নেন। উৎসুক জনতা মহিষটিকে দেখতে ওই এলাকায় ভিড় করেন। পরে (বৃহম্পতিবার) রাত ৯টার দিকে স্থানীয় লোকজন মহিষটিকে কুপিয়ে হত্যা করে।

স্থানীয় একাধিক সূত্রে জানা গেছে, প্রায়ই প্রশাসনের চোখ ফাঁকি দিয়ে চোরাকারবারীরা সীমান্ত দিয়ে অবৈধভাবে ভারতীয় মহিষ নিয়ে আসে। তারা নিরাপদ রুট হিসেবে উপজেলার গ্রামতলা এলাকার রাস্তাটিকে ব্যবহার করে। বৃহম্পতিবার সকাল আনুমানিক ৯টার দিকে প্রায় ২০টির মতো ভারতীয় মহিষ ওই এলাকায় দিয়ে আনার আসার সময় একটি মহিষ হঠাৎ অস্বাভাবিক আচরণ শুরু করে। এ সময় মহিষটি গ্রামতলা গ্রামের বাসিন্দা ফাতেমা বেগম ও একই এলাকার আব্দুস শহীদের ওপর হামলা চালায়।

বিষয়টি বুঝতে পেরে চোরাকারবারীরা বাকি মহিষগুলো নিয়ে সটকে পড়ে। কিছুক্ষণ পর মহিষটি ক্লান্ত হয়ে ওই এলাকার একটি বাড়ির পাশে অবস্থান নেয়। বিষয়টি জানার পর এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।

খবর পেয়ে উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. আশরাফুল আলম খান এবং থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) সুব্রত কুমার দাস ঘটনাস্থলে যান। পুলিশ লোকজনকে ওই এলাকা থেকে নিরাপদে দূরে সরানোর চেষ্টা করে। সন্ধ্যা ৭টার দিকে স্থানীয় লোকজন মহিষটিকে আটকের চেষ্টা করে ব্যর্থ হন। পরে তারা ছুরি দিয়ে মহিষটিকে হত্যা করতে সক্ষম হন।

ওই এলাকার বাসিন্দা নেওয়ারুন নেছা বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে বলেন, সকাল ১১টা থেকে মহিষটি আমাদের বাড়ির পাশে বসে ছিল। এর আগে দুজনকে আক্রমণ করে আহত করেছে। আমরা ভয়ে ঘরের দরজা বন্ধ করে ছিলাম। ভয়ে বাইরে বের হতে পারি না।

ঘটনাস্থলে থাকা থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) সুব্রত কুমার দাস বৃহস্পতিবার রাত ১০টার দিকে বলেন, আমরা বিকেল থেকে এখানে আছি। মহিষটি কার তা জানতে পারেনি। মহিষটির আক্রমণে দুজন আহত হয়েছেন। তারা হাসপাতালে ভর্তি আছেন। স্থানীয়রা মহিষটি হত্যা করেছে।

বড়লেখা উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. আশরাফুল আলম খান বলেন, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, জলাতঙ্ক রোগে আক্রান্ত হয়ে মহিষটি এমন আচরণ করেছে।

 

সূত্রঃ সিলেটভিউ২৪ডটকম

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত