মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৮ শ্রাবণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

মৌলভীবাজারবাসীর কাছে ভিপি মিজানের খোলা চিঠি



মিজানুর রহমান মিজান

ডিএমবি ডেস্কঃ

মৌলভীবাজার সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা বিএনপির সাধারন সম্পাদক মিজানুর রহমান মিজান মৌলভীবাজার বাসীর কাছে খোলা চিঠি দিয়েছেন।

১৬ ফেব্রুয়ারী তিনি তার ফেইবুকে এই খোলা চিঠি প্রকাশ করেন। তা হবহু তুলে ধরা হলো।

প্রিয় মৌলভীবাজার সদর উপজেলাবাসী
আসসালামুআলাইকুম/আদাব
আশা করি আপনারা প্রত্যেকেই আপনাদের নিজ নিজ অবস্থানে ভাল আছেন। আমি সব সময় আপনাদের জন্য দোয়া করি মহান আল্লাহপাক যেন আপনাদের ভাল রাখেন। আপনারা আমাকে মৌলভীবাজার সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচিত করেছিলেন বিগত ২৩/৩/২০১৪ খ্রিঃ। আপনাদের একজন নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি/সেবক হিসাবে আমি শতভাগ শততা নিষ্ঠার সাথে আমার উপর অর্পিত দায়িত্ব ও কর্তব্য পালন করার চেষ্টা করেছি। জানিনা কতটুকু আপনাদের জন্য করতে পেরেছি, আমার দীর্ঘ পাঁচ বছরের দায়িত্ব পালনকালিন কর্মকান্ড, উন্নয়ন, সেবা সবকিছুই আপনাদের চোখের সামনে দৃশ্যমান আছে। তবে একথা নিশ্চিত করে বলতে পারি যে, আমি বাংলাদেশের একটি সর্ব বৃহত রাজনৈতিক সংঘঠনের কর্মী হওয়া সত্বেও আমি চেষ্টা করেছি দল মতের উর্ধ্বে উঠে পক্ষপাতিত্য না করে শতভাগ ন্যায় পরায়নতার সাথে প্রশাসন, উপজেলা পরিষদের সকল জনপ্রতিনিধী, উপজেলার অন্তর্ভুক্ত সকল ইউনিয়ন পরিষদের জনপ্রতিনিধিীগণকে সমন্ময় করে আমার উপর অর্পিত দায়িত্ব ও কর্তব্য পালন করার এবং উপজেলাবাসীকে সেবা দেওয়ার চেষ্টা করে যাচ্ছি।

প্রিয় উপজেলাবাসী
আপনারা নিশ্চই অবগত আছেন যে, ইতিমধ্যে সারা বাংলাদেশের ন্যায় মৌলভীবাজার সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচন-২০১৯ ইং এর তফশীল ঘোষনা করেছে সরকার। যাহা আগামী ১৮ই ফেব্রুয়ারী ২০১৯ ইং মনোনয়ন দাখিলের শেষ দিন এবং ১৮ই মার্চ ২০১৯ ইং ভোট গ্রহনের তারিখ নির্ধারন করা হয়েছে। উক্ত নির্বাচনে আপনারা আমাকে পুনঃরায় ভোট দেওয়ার জন্য আশাবাদ ব্যাক্ত করেছেন এবং আপনারা আমাকে নির্বাচনে প্রার্থী হওয়ার জন্য মতামত দিয়েছেন, দিতেছেন, ফোন করতেছেন, যোগাযোগ করতেছেন এমনকি সার্বিক সহযোগীতার হাত বাড়িয়েছেন আমার প্রতি। গত উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে অনেক প্রতিকুলতার মধ্যে আপনারা আমাকে বিপুল ভোটে নির্বাচিত করেছিলেন। নির্বাচিত করার পর থেকে এখন পর্যন্ত আপনারা আমাকে সার্বিকভাবে সহযোগীতা করে যাচ্ছেন। আপনাদের অনেকেরই আশা, প্রত্যাশা ছিল অতীতের ন্যায় এবারও আপনারা আমাকে পুনঃরায় ভোটে নির্বাচিত করবেন। আমার প্রতি আপনাদের এমন ভালবাসা, উদারতা, প্রিতী, সহযোগীতা আমি জীবনে কখনো ভুলতে পারবনা, আমি আপনাদের নিকট চীর কৃতঞ্জ ও চীর ঋণী। আপনাদের ঋন পরিশোধ করার ক্ষমতা আমার নেই।তবে আপনাদের এই ভালবাসায় আবদ্ধ থাকতে চাই।

প্রিয় উপজেলাবাসী
আপনারা অবগত আছেন যে, গত ৩০ শে ডিসেম্বর ২০১৮ ইং বাংলাদেশে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। উক্ত নির্বাচনে বাংলাদেশের গণতন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠিত করার লক্ষ্যে বুক ভরা আশা নিয়ে বাংলাদেশের সকল রাজনৈতিক দলগুলো অংশগ্রহন করেছিল কিন্তু সেই নির্বাচন কিভাবে কতটুকু অবাধ, সুষ্ঠ ও নিরপেক্ষ হয়েছে তা আপনাদের চোখের সামনে দৃশ্যমান এবং আপনারা আমার চেয়ে তা ভালই জানেন। সদ্য অনুষ্ঠিত হওয়া বাংলাদেশের একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন দেশের সর্বস্তরের জনগনের কাছে, স্থানীয় ও জাতীয় সুশীল সমাজ, বুদ্ধিজীবী, কুটনৈতিক, দেশ বিদেশে, নির্বাচন পর্যবেক্ষক সহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নিকট এমনকি আন্তর্জাতিক ভাবে আজ প্রশ্নবিদ্ধ। সে কারনে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন প্রশ্নবিদ্ধ হওয়ায় এবং জাতীয় সংসদ নির্বাচনের মতো উপজেলা নির্বাচনেও দলীয় প্রতীকে নির্বাচন করার সিদ্ধান্ত সরকার গ্রহন করায় এবং অবাধ, সুষ্ঠ, নিরপেক্ষ এবং অশংগ্রহনমূলক নির্বাচন অনুষ্ঠানের পরিবেশ আজ দেশে না থাকায়, আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আমার প্রাণপ্রিয় রাজনৈতিক সংঘঠন “বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল-বিএনপি” অংশগ্রহন না করার সিদ্ধান্ত গ্রহন করায় এবং আমি দলের মৌলভীবাজার জেলা কমিটির “সাধারন সম্পাদক” পদে থাকায়, দলের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে বা বিপরীতে যাওয়ার সুযোগ না থাকায়, আমি আমার দলের একজন নিবেদিত কর্মী হিসাবে দলের প্রতি পূর্ণ আস্থা ও বিশ্বাস রেখে দলীয় শৃঙ্খলার সার্থে, দলের সিদ্ধান্তের প্রতি সম্মান দিয়ে আপনাদের নির্বাচিত বর্তমান জনপ্রতিনিধি হওয়া স্বত্ত্বেও আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে অংশগ্রহন না করার সিদ্ধান্ত গ্রহন করিলাম।

সম্মানিত উপজেলাবাসী
আপনারা আমাকে আপনাদের আন্তরিক ভালবাসা দিয়ে যেভাবে বুকের মধ্যে আবদ্ধ করেছেন তাই আমি সিদ্ধান্ত নিয়েছি আপনাদের ছেড়ে বা ত্যাগ করে আমি কোথাও যাব না। আমি সব সময আপনাদের পাশে আছি, ভবিষ্যতেও থাকব ইনশাআল্লাহ। আপনাদের যে কোন প্রয়োজনে আপনারা আমাকে পাশে পাবেন। আমি যথাসাধ্য চেষ্টা করব আপনাদের পাশে থাকার। পৃথিবীর যে কোন মানুষ যেমন ভুল ত্রুটির উর্ধ্বে নয়, তাই আমিও একজন মানুষ হিসাবে ভুল ত্রুটি থাকতে পারে, আমার চলাফেরা, কথাবার্তা, আচার-আচরনে যদি কেউ কোন কষ্ট পেয়ে থাকেন তাহলে ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন।

পরিশেষে আপনাদের প্রতি আমার ব্যক্তিগত পক্ষ থেকে এবং মৌলভীবাজার সদর উপজেলা পরিষদের পক্ষ থেকে আন্তরিক শুভেচ্ছা এবং একই সাথে আপনাদের সবার সুস্ব্যাস্থ ও মঙ্গল কামনা করছি।

শুভেচ্ছান্তে
মিজানুর রহমান ভিপি মিজান
চেয়ারম্যান
সদর উপজেলা পরিষদ, মৌলভীবাজার

সাধারন সম্পাদক
বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল-বিএনপি
মৌলভীবাজার জেলা শাখা।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত