বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ১১ বৈশাখ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

‘বঙ্গবন্ধু-জয়বাংলা’ অস্বীকার করলে কপালে ক্ষমতা জুটবে নাঃ সুলতান মনসুর



সুলতান মোহাম্মদ মনসুর আহমেদ

বিশেষ রিপোর্টারঃ

ডাকসুর সাবেক ভিপি, মৌলভীবাজার-২ আসনের জাতীয় সাংসদ সদস্য ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সদস্য সুলতান মোহাম্মদ মনসুর আহমদ বলেছেন -‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও জয় বাংলা যারা অস্বীকার করবে তাদের কপালে বাংলার মাঠিতে ক্ষমতায় আসা সম্ভব নয়। এ মেসেজটি সাংবাদিকদের মাধ্যমে দেশবাসীকে জানাতেও আহব্বান জানান তিনি।

মনসুর বলেন-‘জয় বাংলা হল বাঙ্গালীর রণধ্বনি। আর বঙ্গবন্ধু হলেন বাঙ্গালী জাতির স্থপতি। তাই জয় বাংলা-বঙ্গবন্ধুর বেলায় কোন আপোষ নেই। পকিস্তানিদের বিরুদ্ধে স্বাধীনতার চেতনা ছিল দুর্নীতিমুক্ত সমাজ।’

মঙ্গলবার (২৬ মার্চ) মহান স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষ্যে মৌলভীবাজারে কুলাউড়া উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে দুপুর ১টায় স্থানীয় স্বাধীনতা সৌধ চত্বরে বীরে মুক্তিযোদ্ধা ও শহীদ পরিবারের সদস্যদের সম্মানে এক সংবর্ধণা অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে প্রধান অতিথির বক্তব্য এসব কথা বলেন সুলতান মনসুর।

৭১ সালের নানা প্র্রেক্ষাপট উপস্থাপনা করে ভারতের ভূমিকায় প্রশংসা করে সাবেক এ ডাকসু ভিপি বলেন-‘বঙ্গবন্ধু দু:খী মানুষের মুখে হাঁসি ফুটানোর জন্যই দেশটি স্বাধীন করেছিলেন। জাতির জনকের ডাকে সাড়া দিয়ে বেশীরভাগ কৃষক-শ্রমীক-মেহনতি মানুষ ও তাঁদের সন্তানেরাই মুক্তিযুদ্ধের সময় অস্ত্র হাতে নিয়েছিলো। তাঁদের আত্মত্যাগের বিনিময়ে আমরা স্বাধীন দেশ পেয়েছি। বঙ্গবন্ধু বলতেন ‘সকলই আমাদের বন্ধ,ু কেউ আমাদের শত্রু না।’
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বক্তব্যের উদ্ধৃতি দিয়ে সুলতান মনসুর বলেন-‘মুক্তি সংগ্রামের চেতনায় বিশ^াসীদের নিয়ে হবে জাতীয় ঐক্য। জনগণের চিন্তার সমন্বয়ে। জাতীয় ঐক্যের ডাকের মধ্য দিয়ে এ জাতিকে ঐক্যবদ্ধ করে দেশকে এগিয়ে নিতে হবে।’

অনুষ্ঠানের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুহাম্মদ আবুল লাইছের সভাপত্বিতে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন- সাবেক এমপি আব্দুল মতিন, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আসম কামরুল ইসলাম, পৌর মেয়র শফি আলম ইউনুছ, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. সাদী উর রহিম জাদীদ, কুলাউড়া থানার অফিসার ইনচাজ (ওসি) ইয়ারদৌস হাসান, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম রেনু, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের ডেপুটি কমান্ডার মো. মাসুক মিয়া।

এদিকে সকাল ৮টায় কুলাউড়া নবীন চন্দ্র মডেল সরকারী বিদ্যালয় মাঠে শান্তির প্রতীক পায়রা উড়িয়ে দিবসের কার্যক্রম উদ্বোধন করেন প্রধান অতিথি সাংসদ সুলতান মোহাম্মদ মনসুর আহমদ। এসময় উনার সাথে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আসম কামরুল ইসলাম। পরে আনুষ্ঠানিকভাবে সাংসদ কর্তৃক জাতীয় পতাকা উত্তোলন ও সালাম গ্রহণ শেষে মুক্তিযোদ্ধা, পুলিশ, আনসার ও ভিডিপি, স্কাউট, গার্লস গাইড, কাবস, স্কুুল, কলেজ ও মাদ্রাসার শিক্ষার্থীদের অংশ গ্রহণে কুচকাওয়াজ ও শারীরিক কসরত প্রদর্শণ, প্রীতি ফুটবল ম্যাচ অনুষ্ঠিত ও পুরষ্কার বিতরণ করা হয়।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত