শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৪ শ্রাবণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

সেই ব্রিজের নিচের বগি উদ্ধার, আবারও ৮ ঘন্টা ট্রেন যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন
বরমচাল ট্রেন দুর্ঘটনা

বরমচাল ট্রেন দুর্ঘটনা



ডিএমবি ডেস্ক::

কুলাউড়ার বরমচাল বড়ছড়া ব্রিজের ওই ট্রেন দূর্ঘটনায় বড়ছড়া নিচে পড়ে থাকা উপবন এক্সপ্রেস ট্রেনের বগি উদ্ধার করা হয়েছে। উদ্ধারকৃত বগিটি ছড়ার উত্তর পশ্চিম পাশের পাড়ে রাখা হয়েছে। অপরদিকে ব্রিজের পাশে পড়ে থাকা বগি দু’টি স্ব স্ব স্থানেই পড়ে আছে। গতকাল (শনিবার) ভোরে ঢাকা থেকে আসা দু’টি ক্রেন উদ্ধার কাজ চালিয়ে দূপুর দেড়টার দিকে সমাপ্ত করে।
উদ্ধার কাজের সময় প্রায় ৭ ঘন্টা ট্রেনচলাচল বন্ধ থাকার পর সিলেটের সাথে সারা দেশের ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক হয়। এ সময় বেশ কয়েকটি আন্তনগর ট্রেন উভয় দিকে আটকা পড়ে। এসময় স্টেশনগুলোতে অপেক্ষমান যাত্রীরা চরম দূর্ভোগে পড়েন। সিলেট থেকে ছেড়ে আসা আন্তনগর জয়ন্তিকা এক্সপ্রেস মাইজগাঁও ও কালনী এক্সপ্রেস বরমচাল স্টেশনে আটকা পড়ে। অপরদিকে চট্রগ্রাম থেকে ছেড়ে আসা সিলেটগামী উদয়ন এক্সপ্রেস শমশের নগর স্টেশনে আটকা পড়ে। ২৩ জুন রাতে সিলেট থেকে ঢাকাগামী উপবন এক্সপ্রেসের দূর্ঘটনা ঘটলে ৬টি বগি লাইনচ্যুত হয়। এর মধ্যে ২টি বগি উদ্ধার করে নিয়ে গেলেও বড়ছড়া ব্রিজের নিচে ১টি বগি ও এর পাশে আরো ২টি বগি পড়ে থাকে। আর ১টি বগি উদ্ধার করে রেল লাইনের পশ্চিম পাশে রাখা হয়। ২৪ শে জুন ওই দূর্ঘটনা কবলিত বগি গুলো পড়ে থাকা স্থানে রেখেই দ্রুত লাইন মেরামতের পর সারাদেশের সাথে বন্ধ থাকা ট্রেন যোগাযোগ পুনরায় সচল করা হয়।
বুধবার দুপুর থেকে শুরু হওয়া অতি বৃষ্টি ও পাহাড়ী ঢলের কারণে বড়ছড়ার ব্রিজের নিচে পড়ে থাকায় ছড়ায় পানি চলাচলে চরম প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি হয়। এতে করে কৃত্রিম ¯্রােত ও বন্যায় ব্রিজটি ঝুঁকিতে পড়ে। এ বিষয়ে বরমচাল স্টেশন মাষ্টার মোঃ শফিকুল ইসলাম কাজল জানান পাহড়ী ছড়ার নিচে রেলের বগি থাকায় পানি নিষ্কাশনে ব্যাঘাত ঘটায় ঝুঁকিকে ছিল সেতুটি। যে কারণে দ্রুত উদ্ধার চালানো হয়।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত