বুধবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ১ কার্তিক ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

সৈয়দ আবু জাফর আহমদ স্মরণে নাগরিক শোকসভা



রুহুল আমীন রুহেল, ম্যানচেষ্টার থেকে::

‘সৈয়দ আবু জাফর আহমদ ছিলেন গণমানুষের নেতা। ছাত্র আন্দোলনের মধ্যি দিয়ে বেড়ে উঠা ছাত্র নেতা সৈয়দ জাফর জাতীয় রাজনীতির এক দিকপাল হয়ে উঠেছিলেন । ছাত্র সংসদের নির্বাচিত সাধারন সম্পাদক থেকে তিনি হয়ে উঠেছিলেন বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির কেন্দ্রীয় সাধারন সম্পাদক। নিপিড়ীত মানুষের পাশে থেকে গনমানুষের কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে তিনি হয়ে উঠেছিলেন গনমানুষের প্রকৃত নেতা। আর সেজন্যই আজ পৃথিবীর দেশে দেশে দল মতের উর্ধ্বে উঠে কমরেড জাফরকে স্মরন করছে মানুষ বিনম্র শ্রদ্ধায়।’

নর্থওয়েষ্ট ইংল্যান্ডের বাংলাদেশি কমিউনিটির উদ্যেগে আয়োজিত এক নাগরিক শোকসভায় বক্তারা এসব কথা বলেন।

বাংলাদেশের কমিউনিষ্ট পার্টি সিপিবি‘র কেন্দ্রীয় প্রেসিডিয়াম সদস্য, সাবেক সাধারন সম্পাদক, বীর মুক্তিযোদ্ধা, সাংবাদিক সৈয়দ আবু জাফর আহমদ স্মরণে এ নাগরিক শোক সভা অনুষ্ঠিত হয়।

নর্থওয়েষ্ট বাংলা প্রেস ক্লাবের সভাপতি সাংবাদিক-কলামিস্ট ফারুক যোশীর সভাপতিত্বে ও বাংলাদেশ ছাত্রলীগ মৌলভীবাজার জেলা শাখার সাবেক সাধারন সম্পাদক রুহুল আমীন রুহেলের পরিচালনায় এতে প্রধান অথিতি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা মেডিকেল কলেজের সাবেক ভিপি ও বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়নের সাবেক কেন্দ্রীয় সভাপতি, সিপিবি যুক্তরাজ্য শাখার সভাপতি ডাঃ আহমেদ জামান। এতে বিশেষ অথিতি ছিলেন যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগ ম্যানচেস্টার শাখার সভাপতি ছুরাবুর রহমান।

নাগরিক শোক সভায় প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখেন- মৌলভীবাজার জেলা ছাত্র ইউনিয়নের সাবেক সভাপতি যুক্তরাজ্য সিপিবি’র নেতা মাসুদ আহমদ।

বক্তারা তাঁদের আলোচনায় কমরেড জাফরের বর্ণাঢ্য রাজনৈতিক জীবনের উপর আলোকপাত করতে গিয়ে বলেন, চা বাগানের শ্রমিকদের বেঁচে থাকার আন্দোলন, পরিবহন শ্রমিক আন্দোলন থেকে শুরু করে শ্রমিক মেহনতি মানুষের আন্দোলনের তিনি ছিলেন অগ্রসৈনিক। সাম্প্রদায়িকতা আর স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলনে তিনি ছিলেন সম্মুখ সারির নেতা। আন্দোলন সংগ্রাম করতে গিয়ে তাঁকে কারাগারে যেতে হয়েছে কয়েক বার।

একাত্তুরের রণাঙ্গনের তাঁর বীরত্ব নিয়ে আলোচনা করেন যুদ্ধসময়ের সতীর্থ সিলেট জেলা ছাত্র ইউনিয়নের সাবেক নেতা মুক্তিযোদ্ধা ডাঃ নজরুর ইসলাম। তাঁর সম্পাদনায় প্রকাশিত সাপ্তাহিক মনুবার্তা একসময় সৃজনশীল মানুষের আশ্রয়স্থল ছিল বলে আলোচকরা উল্লেখ করেন।

সভায় অন্যান্যদের মাঝে বক্তব্য রাখেন- আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক এডভোকেট মীর গোলাম মোস্তফা, যুগ্ন সম্পাদক রুহুল আমীন চৌধুরী মামুন,সিপিবি নর্থওয়েষ্ট শাখার সহসাধারন সম্পাদক মোহাম্মদ আজাদ, জিএমবিএ’র সাধারন সম্পাদক ডি এন কোরেশী, মৌলভীবাজার এসোসিয়েশনের চেয়ারম্যান ফারুক আহমদ, আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি মামুনুর রশিদ, সাংস্কৃতিক কর্মী তাসাদ্দুক হোসেন বাহার, আব্দুল হান্নান, সাংবাদিক মিজানুর রহমান মিজান, শেখ জাফর আহমদ,সুরুজজামান মন্নান ,চুরুক মিয়া,সৈয়দ সাদেক আহমদ, আবু সাইদ চৌধুরী,যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শামীম চৌ: স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি আমিনুল হক ওয়েছ ও সাধারন সম্পাদক ফয়জুল হক জয়েল ,মইন আহমদ লিটন, বোরহান আহমদ, মোস্তফা জামান, মিছবাহ উদ্দিন সায়েম, হবিগন্জ সোসাইটির সাধারন সম্পাদক মোহাম্মদ মোন্তাকিম প্রমূখ।

পবিত্র কোরান তেলাওয়াতের মধ্য দিয়ে শুরু হওয়া শোকসভায় প্রয়াত নেতার স্মরণে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত