শনিবার, ২৪ অগাস্ট ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৯ ভাদ্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

কোরবানীকৃত পশুর উচ্ছ্বিষ্টাংশ পরিবেশ সম্মত উপায়ে অপসারণের অনুরোধ- পরিবেশ মন্ত্রণালয়



নিজস্ব প্রতিবেদক::

পবিত্র ঈদুল আয্হা উপলক্ষে কোরবানীকৃত পশুর উচ্ছ্বিষ্টাংশ সুষ্ঠুভাবে অপসারণের মাধ্যমে পরিবেশ দূষণ রোধ করার জন্য সকল সরকারি বেসরকারি সংস্থা ও সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে অনুরোধ জানানো হয়েছে। এ বিষয়ে পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ে মন্ত্রণালয়ের সচিব আবদুল্লাহ আল মোহসীন চৌধুরীর সভাপতিত্বে আজ এক আন্তঃমন্ত্রণালয় সভা অনুষ্ঠিত হয়।

উক্ত সভায় গৃহীত সিদ্ধান্তের আলোকে কোরবাণীকৃত পশুর উচ্ছ্বিষ্টাংশ পরিবেশ বান্ধব উপায়ে অপসারণ বিষয়ে পরিবেশ অধিদপ্তর থেকে ৪ লাখ লিফলেট বিতরণের কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে। সারা দেশে জেলা প্রশাসন ও পরিবেশ অধিদপ্তর, স্থানীয় সরকার বিভাগের অধীনস্থ প্রতিষ্ঠানসমূহ ও জেলা তথ্য অফিসের মাধ্যমে এ লিফলেট বিতরণ করা হবে। এ বিষয়ে প্রত্যেক জেলায় জেলা প্রশাসকগণ জেলা তথ্য অফিসার, উপ-পরিচালক ইসলামিক ফাউন্ডেশন ও জন প্রতিনিধিসহ অন্যান্য দপ্তরের সমন্বয়ে সভা আয়োজন করবেন। জেলা তথ্য অফিসের মাধ্যমে মাইকিং ও ডক্যুমেন্টারি প্রদর্শনের মধ্যমে জনসচেতনতা তৈরী করা হবে। ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে জেলা পর্যায়ে প্রত্যেক মসজিদের ইমাম সাহেবগণ পবিত্র ঈদ-উল্-আযহার পূর্বের জুম্মায় এবং ঈদ-উল্-আযহার খুৎবাতে বক্তব্য প্রদানের বিষয়ে ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন। পরিবেশ অধিদপ্তর কর্তৃক প্রকাশিত লিফলেটে উলি¬খিত তথ্য সকল ইলেক্ট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়াতে প্রচারের ব্যবস্থা করা হবে। জনসচেতনতা সৃষ্টির জন্য পরিবেশ অধিদপ্তর কর্তৃক সরবরাহকৃত ফিচার তথ্য অধিদপ্তর সকল প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ায় প্রচারের ব্যবস্থা গ্রহণ করবে। জনসচেতনতা তৈরির লক্ষ্যে সকল মোবাইল অপারেটরের মাধ্যমে খুদে বার্তা প্রেরণের ব্যবস্থা করা হবে।

ঢাকা শহরে বর্জ্য পরিস্কার করার ও ঢাকা সিটি কর্পোরেশনের নির্ধারিত স্থানে বর্জ্য ফেলার জন্য সিটি কর্পোরেশনের প্রতিনিধি উক্ত সভার মাধ্যমে সকলের প্রতি আহ্বান জানান। সিটি কর্পোরেশনের ওয়ার্ড কমিশনারদের মাধ্যমে বর্জ্য ব্যবস্থাপনার জন্য বিনা মূল্যে পরিবেশ সম্মত ব্যাগ সরবরাহ করা হবে বলে তিনি সভাকে অবহিত করেন। মহানগরীর প্রতিটি ওয়ার্ডে জনসচেতনতার জন্য মাইকিংসহ জনসচেতনতামূলক স্টিকার ও লিফলেট বিতরণের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

বাংলাদেশ টেলিভিশন ও বাংলাদেশ বেতারের পাশাপাশি সবক’টি প্রাইভেট চ্যানেলে এ বিষয়ে তথ্যসম্বলিত ডক্যুমেন্টারি প্রদর্শন ও স্পেশাল বুলেটিন প্রচারের ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে সকল বেসরকারি চ্যানেলসমূহকে বিশেষভাবে অনুরোধ জানানো হয়েছে।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত