বৃহস্পতিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৪ আশ্বিন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

চিরকুটে লিখে তরুণীর আত্মহত্যা



ডিএমবি ডেস্ক ::

‘আমার আব্বা, আম্মা ও ভাই আমাকে খুব আদর করেন। সবাই আমাকে ভালোবাসেন। আমার মা-বাবা আমাকে বিয়ে দিতে চাইছিলেন। আমি এই মুহূর্তে বিয়ের জন্য প্রস্তুত নই। কিন্তু বিয়েতে অমত করলে আমার মা বাবা কষ্ট পাবেন। আমি আমার মা-বাবাকে কষ্ট দিতে চাই না। তাই এই পথ বেছে নিয়েছি। আমি জানি ওপারে অগ্নি চুল্লিতে আমি জ্বলবো। তবুও আমাকে সবাই মাফ করে দিয়েন।’

মৌলভীবাজারের কুলাউড়ায় শারমিন আক্তার (১৭) নামে এক তরুণী আত্মহত্যার আগে চিরকুটটি লিখে যায়। সে উপজেলার হাজিপুর ইউনিয়নের কালিয়াটিলা গ্রামের লাল মিয়ার মেয়ে ও শমসেরনগর সুজা মেমোরিয়াল কলেজের দ্বাদশ শ্রেণীর ছাত্রী।

চিরকুটে আরও সে লিখে, ‘আমার জীবনের ১৬টি বছর খুব সুন্দর ছিলো। কিন্তু ১৭তম বছরে অনেক কিছু ঘটে গেছে।’

সোমবার (১৯ আগস্ট) সকাল সাড়ে ৯ টার দিকে পুলিশ তার নিজ বাড়ি থেকে মরদেহ উদ্ধার করে। প্রাথমিক সুরতহাল শেষে ময়নাতদন্তের জন্য মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।। এরআগে সোমবার ভোরের দিকে সে আত্মহত্যা করেছে স্থানীয়রা জানিয়েছেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, পরিবারের অজান্তে সে ঘরের ফ্যানের সাথে ওড়না পেঁছিয়ে আত্মহত্যা করে শারমিন। গলায় ফাঁস দিয় ঝুলতে দেখে পুলিশকে খবর দিলে তার লাশ উদ্ধার করে। শারমিনের শেষ লেখা চিরকুটটি পুলিশ উদ্ধার করেছে।

উপরিউক্ত চিরকুটটির বিষয়টি জানিয়ে স্থানীয় হাজিপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুল বাছিত বাচ্চু বলেন, ধারণা করছি, এটা আত্মহত্যা। লাশ উদ্ধারের সত্যতা নিশ্চিত করেন কুলাউড়া থানার ওসি ইয়ারদৌস হাসান ।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত