বৃহস্পতিবার, ১২ ডিসেম্বর ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ২৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

কাশ্মীরের স্বাধীনতার দাবিতে মৌলভীবাজারে রাজপথে হাজারো মানুষ



নিজস্ব প্রতিবেদক::
ভারত শাষিত জম্ম ও কাশ্মীরে ভারতীয় নিরাপত্তা বাহিনীর আগ্রাসন ও কাশ্মীরে স্বাধীনতার দাবিতে বিক্ষোভে মৌলভীবাজার উত্তাল। নজিরবিহীন এই বিক্ষোভ ও সমাবেশ কর্মসূচি পালন করে ওলামা পরিষদ মৌলভীবাজার।
শনিবার দুপুরের দিকে শহরের টাউন ঈদগাহ প্রাঙ্গনে অনুষ্ঠিত হয় বিক্ষোভ সমাবেশ। মুফতি হাবিবুর রহমান ও মাওলানা মুজাহিদ আহমদের যৌথ সঞ্চালনায় সমাবেশে সভাপত্বি করেন, ওলামা পরিষদের সভাপতি ও জেলার শীর্ষ আলেম শাইখুল হাদিস মাওলানা আব্দুল বারী ধর্মপুরী।
সমাবেশে বক্তব্য রাখেন- নুরুল কোরআন মাদ্রাসার পরিচালক ও সাবেক রাজনগর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মাওলানা আহমদ বিলাল, রায়পুর মাদ্রাসার প্রিন্সিপাল মাওলানা গিয়াস উদ্দীন, জামেয়া রহমানিয়া মাদ্রাসার প্রিন্সিপাল মাওলানা জামিল আহমদ আনসারী, বরুনা মাদ্রাসার মুহাদ্দিস মাওলানা মাওলানা আব্দুল হাই উত্তরসুরী ও মাওলানা হিফজুর রহমান ফোয়াদ প্রমুখ।
জম্ম ও কাশ্মীরের সংখ্যালঘু মুসলমানদের প্রতি ভারতীয় বাহিনীর নির্যাতনের সমালোচনা করে সমাবেশে বক্তারা বলেন, “সেখানকার মুসলমানদের উপর ভারতীয় বাহিনীর নির্যাতন অতীতের সকল রেকর্ড ভঙ্গ করেছে, সেখানের নাগরীকদের সকল অধিকার ভ’লন্ঠিত করলেও জাতিসংঘ সেক্ষেত্রে একেবারেই নীরব ভুমিকা পালন করে চলেছে। কাশ্মীরে নারীদের দর্ষণ ও যুবকদের ধরে ধরে আটক করে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। সমাবেশে জেলার শীর্ষ আলেম শাইখুল হাদিস মাওলানা আব্দুল বারী ধর্মপুরী বলেন, ভারতের যে জঙ্গি সংগঠন আরএস মহাত্নাগান্ধীকে হত্যা করেছিল, তারাই চায় সেদেশের মুসলমানদের হত্যা করতে, দেশ থেকে উৎখাত করতে চায়”।
তারা বলেন, “তাদের সেই পরিকল্পনা বাস্তবায়ন হবেনা কারন ভারত অচিরেই ভেঙ্গে টুকরো টুকরো হবে এবং আজাদীর লড়াইয়ের মধ্যদিয়ে মুসলমানরা জেগে উঠেছে তাই কাশ্মীরও স্বাধীন হবে”।
সমাবেশ শেষে ব্যাপক পুলিশি নিরাপত্তার মধ্যদিয়ে হাজারো মানুষের অংশগ্রহনে শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়। বিক্ষোভ মিছিলে ভারতীয় আগ্রাসন বন্ধ ও কাশ্মীরে স্বাধীনতার দাবিতে মুর্হুমুহু শ্লোগান দিতে থাকে বিক্ষোভকারীরা। এসময় তাদের হাতে বিভিন্ন শ্লোগান লেখা প্লেকার্ড বহন করতে দেখা যায়। শহরের ঈদগাহ প্রাঙ্গণ থেকে বিক্ষোভ মিছিলটি শুরু হয়ে শহর প্রদক্ষিণ করে কুসুমবাগ এলাকায় গিয়ে শেষ মোনাজাতের মাধ্যমে হয়।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত