মঙ্গলবার, ৩১ মার্চ ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ১৭ চৈত্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

সিলেট বিভাগের শ্রেষ্ট জয়িতা বেগম শামসুন্নাহার চৌধুরী




একজন সফল জননী হিসেবে সিলেট বিভাগের শ্রেষ্ট জয়িতা নির্বাচিত হলেন, বালাগঞ্জ উপজেলার গৌরীপুর গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা মরহুম মকবুল হোসেন চৌধুরীর সহধর্মীনি বেগম শামসুন্নাহার চৌধুরী। এর আগে তিনি বালাগঞ্জ উপজেলা ও সিলেট জেলা পর্যায়ে শ্রেষ্ট জয়িতা নির্বাচিত হন। সম্প্রতি সিলেটের কবি নজরুল অডোটরিয়ামে মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মাননীয় প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুননেছা ইন্দিরা এমপির কাছ থেকে তিনি এ সম্মাননা গ্রহণ করেন।

মৌলভীবাজারের রাজনগর উপজেলার টগরপুর গ্রামের একটি সম্ভান্ত মুসলিম পরিবারে বেগম শামসুন্নাহার চৌধুরীর জন্ম। তাঁর পিতা মরহুম আব্দুল কুদ্দুস চৌধুরী একটি চা বাগানের ব্যবস্থাপক ছিলেন। আট ভাই ও তিন বোনের মধ্যে তিনি দ্বিতীয়। ভাইদের মধ্যে উচ্চ পদস্থ সেনা কর্মকর্তা সহ সবাই স্ব স্ব ক্ষেত্রে প্রতিষ্ঠিত। তিনভাই ১৯৭১ সালে মহান মুক্তিযুদ্ধে বীরত্বপূর্ণ অবদান রাখেন। এরমধ্যে আব্দুল আহাদ চৌধুরী বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদের চেয়ারম্যান ছিলেন।

১৯৮৮ সালে তার স্বামী মকবুল হোসেন চৌধুরীর আকর্ষিক মৃত্যুতে তাকে ছয় সন্তানের দায়িত্ব নিয়ে জীবন সংগ্রামে নতুন অধ্যায়ের সূচনা করতে হয়। তিনি তার সন্তানদের উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত করাসহ সংসার এবং কর্মক্ষেত্রে নিরলস পরিশ্রম চালিয়ে সফলতা অর্জন করেন। সন্তানদের সবাই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ দেশ-বিদেশে উচ্চ শিক্ষা গ্রহণ করেন।

তার প্রথম সন্তান নাসরিন সুলতানা চৌধুরী যুক্তরাষ্ট্রে ব্যাংকার হিসেবে কর্মরত আছেন। দ্বিতীয় সন্তান নেওয়াজ হোসেন চৌধুরী বাংলাদেশ সরকারের উপ-সচিব হিসেবে কর্মরত। তৃতীয় সন্তান রেওয়াজ হোসেন চৌধুরী ইন্টাললিংক ও প্রিন্টিং ব্যবসার সাথে জড়িত। চতুর্থ সন্তান শাখাওয়াত হোসেন চৌধুরী আধুনিক বিল্ডার্স লিঃ এর চেয়ারম্যান। পঞ্চম সন্তান মারুফ হোসেন চৌধুরী অরভিস্ ফ্যাশন হাউসের স্বত্তাধিকারী। ৬ষ্ঠ সন্তান ডাঃ ইফতেখার হোসেন চৌধুরী চিকিৎসা পেশার সাথে জড়িত।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত