শুক্রবার, ২৪ জুলাই ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ৯ শ্রাবণ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

মৌলভীবাজারে করোনা সংক্রমণ রোধে এন্টি বডি তৈরিতে সহয়াক হোমিওপ্যাথিক ঔষধ বিতরণ।



জেসমিন মনসুর;করোনা প্রতিরোধে সামাজিক আন্দোলন পরিষদ এর আয়োজনে গত ২২ জুলাই সকাল ১১ ঘটকায় মৌলভীবাজার প্রেসক্লাব মিলনায়তনে মৌলভীবাজার জেলা প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি ও সিনিয়র সাংবাদিক সরওয়ার আহমদের সভাপতিত্বে ও সাংবাদিক কবি সালাহ উদ্দিন ইবনে শিহাব এর পরিচালনায় এসো-এন্টি বডি তৈরী করি করোনা জয় করি” এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে মৌলভীবাজারে বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষের মাঝে প্রাণঘাতী করোনা সংক্রমণ রোধে এন্টি বডি তৈরিতে সহয়াক হোমিওপ্যাথিক ঔষধ বিতরণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্তিত থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে সেবামূলক এই কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন মৌলভীবাজার-৩ আসনের সাংসদ নেছার আহমেদ এমপি. অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন মৌলভীবাজার সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জিয়াউর রহমান।সমাবেশে আর্সেনিক বিষয়ে বক্তব্য রাখেন কবি শহীদ সাগ্নীক।
অন্যান্যদের মাঝে বক্তব্য রাখেন প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি ও সিনিয়র সাংবাদিক বকসী ইকবাল আহমেদ, মৌলভীবাজার মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলমগীর হোসেন, সাংবাদিক সমিতির সভাপতি ও প্রেসক্লাবের সাবেক সহ-সভাপতি এবং বাংলাভিশনের জেলা প্রতিনিধি সিনিয়র সাংবাদিক সৈয়দ হুমায়েদ আলী শাহীন ও প্রেসক্লাব সাধারণ সম্পাদক পান্না দত্ত. সহ সভাপতি নূরুল ইসলাম শেফুল,নাট্য শিল্পী খালেদ চৌধুরী সহ প্রমুখ। প্রধান অতিথির বক্তব্যে মৌলভীবাজার-৩ আসনের সাংসদ নেছার আহমেদ এমপি.বলেন, এই মহামারি যেখানে সারা বিশ্বে বাড়ছে, সেখানে আমরা দেখছি, একদল দুষ্ট লোক এসব পরোয়া না করে হাজার হাজার কোটি টাকা মেরে দিচ্ছে।
সম্প্রতি করোনা ভুয়া রিপোর্টসহ নানা জালিয়াতির ঘটনায় আটক রিজেন্ট গ্রুপের চেয়ারম্যান সাহেদ করিম ও জেকেজির চেয়ারম্যান ডাঃ সাবরিনার বিষয়ে মন্তব্য করতে গিয়ে তিনি বলেন, এই সাহেদ আর সাবরিনার মত শতশত লোক আছে । এদের মত যারা আছে তাদের সমাজ থেকে একেবারেই নির্মূল করা যাবেনা,তবে চেষ্ট করতে হবে যাতে আমরা সেখান থেকে বেঁচে থাকতে পারি। এই সাহেদ আর সাব্রিনার অবস্থা কি বর্তমানে? এরা সমাজে কিভাবে মুখ দেখাবে প্রশ্ন রেখে তিনি বলেন, এদের যখন মানুষ রাস্তা ঘাটে দেখবে তখন পিছন থেকে বলবে ঐ বাটপার যাচ্ছে।
করোনার এই মহামারিতে সিনিয়র সাংবাদিক সরোয়ার আহমদের এই উদ্যেগটি যদি মানুষের সামান্যতম কাজে লাগে তাহলে আমার এখানে আসা স্বার্থক হবে জানিয়ে তিনি আরো বলেন, আমি এই ঔষধ সরওয়ার সাহেবের নির্দেশে তিনদিন সেবন করে এসেছি। এই পৃথীবিতে অনেক ঔষধই আছে, বর্তমানে এলোপ্যাথিক , হোমিওপ্যাথিক ও হারবাল আছে। সেটা যদি প্যারালাল ভাবে বলতে হয় তাহলে তিনটিই বিশ্বে চলে আসছে। এই তিনটিই মানুষের উপকার হচ্ছে। মানুষের লোকমুখে শুনা যায় হোমিওপ্যাথিক জার্মানির ঔষধ, এর মান অনেক ভাল, হয়তো সেটা সঠিক,তবে অনেক সময় আমাদের দেশে জার্মানির ঔষধ বলে অন্যটা দিয়ে দেওয়া হয়। এর কারনে হোমিওপ্যাথিক এর যে মূল কাজটা সেখান থেকে মানুষ বঞ্চিত হয়। এখানে উল্লেখ্য যে সমাবেশে সাংবাদিক, মুক্তিযোদ্ধা ও পত্রিকা হকারদের মধ্যে ঔষধ বিতরন করা হয়। এই কার্যক্রম শুধুমাত্র সাংবাদিক,মুক্তিযোদ্ধা ও পত্রিকা হকারদের মধ্যে চলবে বলে আয়োজকরা জানিয়েছেন।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত