মঙ্গলবার, ৯ ফেব্রুয়ারী ২০২১ খ্রীষ্টাব্দ | ২৭ মাঘ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
Sex Cams

হযরত মাওলানা মোঃ আজিজুর রহমান ছাহেব (রাহঃ) এর সাথে আমার কিছু স্সৃতি।



.মাওলানা মোঃ আব্দুল কুদ্দুছ
হযরত মাওলানা মোঃ আজিজুর রহমান ছাহেব (রাহঃ) ছিলেন এক জন প্রবীণ প্রখ্যাত আলিমে দ্বীন ও শামছুল উলামা হযরত আল্লামা ফুলতলী ছাহেব ক্বিবলাহ (রাহঃ) এর স্নেহ ভাজন এবং শায়খুল হাদিস হযরত আল্লামা মোঃ হবিবুর রহমান ছাহেব এর প্রথম সময়ের অন্যতম এক জন ছাত্র ৷ উনার সাথে আমার বিভিন্ন ভাবে সম্পর্কের কারণে ও আমার অন্তরের শ্রদ্ধা এবং ভালবাসার কারণে কিছু লেখার আশা করছি ৷ উনার সম্পর্কে লেখতে গেলে শেষ হবেনা ৷ আমি শুধু সামান্য কিছু স্সৃতি লেখার চেষ্টা করব ইনশাআল্লাহ ৷ তিনি বাংলাদেশের সিলেট জেলার জকিগঞ্জ উপজেলার হাইদ্রাবন্দ গ্রামে ১৯৪২ ইংরেজীতে জন্ম গ্রহন করে সেখানে বসবাস করতেন ৷ মধ্যে খানে কয়েক দিন একই উপজেলার মনসুর পুর গ্রামে বসবাস করেছেন ৷ তিনি অনেকের কাছে দুদু মাওলানা সাহেব হিসাবে পরিচিত ৷ তিনি ১৯৬৩ ইংরেজীতে কামিল পাশ করেন ৷ দেশে বাদেদেওরাইল ফুলতলী কামিল মাদ্রাসা, ইছামতি উচ্চ বিদ্যালয় ও জকিগঞ্জ সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ে শিক্ষকতা করেছেন ৷ শামছুল উলামা হযরত আল্লামা ফুলতলী ছাহেব ক্বিবলাহ (রাহঃ) তাঁকে ইংল্যান্ডের লন্ডন শহরে “মাদ্রাসা ই দারুল ক্বিরাত মজিদিয়া” এর প্রধান শিক্ষক হিসাবে ১৯৮২ ইংরেজীতে ইংল্যান্ডে পাঠান ৷ পরবর্তিতে তিনি ইংলেন্ডের বিভিন্ন শহরে মসজিদের ইমাম ও খতিব হিসাবে দায়িত্ব পালন করেছেন ৷ শেষে আক্সব্রিজ জামে মসজিদের ইমাম ও খবিবের দায়িত্ব পালন করে অবসরে চলে যান ৷ তিনি লন্ডন শহরের লুইসাম এলাকায় পরিবার সহ বসবাস করতেন ৷ আমি দেশে থাকতে উনাকে কিছু চিনতাম ও জানতাম ৷ বিশেষ করে আমাদের ইছামতি কামিল মাদ্রাসার তৎ কালীন সুনাম ধন্য অধ্যক্ষ শায়খুল হাদিস হযরত আল্লামা মোঃ হবিবুর রহমান ছাহেবের কাছ উনার সম্পর্কে অনেক কিছু জেনেছি, তিনি ছিলেন মোহাদ্দিস ছাহেব হুজুরের প্রথম সময়ের অন্যতম স্নেহ ভাজন এক জন ছাত্র, জনাব মোহাদ্দিস ছাহেব হুজুর বিভিন্ন সময় বিভিন্ন প্রসঙ্গে উনার কথা বলতেন ৷ উনার ছেলে মোঃ আব্দুল বাতিন সাহেব আমাদের ইছামতি কামিল মাদ্রাসায় অধ্যায়ণ কালে তাঁর সম্পর্কে অনেক কিছু জানার সুযোগ হয়ছিল ৷ আমি ২০০১ ইংরেজীতে বৃটেন আসার পর পরই তাঁর সাথে আমার ফোনে আলাপ হয় ৷ এই সময় তিনি আক্সব্রিজ জামে মসজিদের ইমাম ও খতিব ছিলেন, তিনি সেখান থেকে বিদায় নিয়ে আসার সময় অন্য এক জন ইমাম সাহেব সেখানে দেয়ার প্রয়োজন তাই এক জন ইমাম সাহেব খুজঁতেছেন ৷ এরই মধ্যে জানতে পারছেন যে আমি ইংল্যান্ডে এসেছি তাই আমাকে সেখানে ইমাম হিসাবে নেয়ার জন্য অনেক বার কয়েক দিন ফোনে যোগাযোগ করেছেন ৷ পরে আমি হুজুরকে অনেক বিনয়ের সাথে বলেছি আমি ইমামতি করার যোগ্যতা রাখি না তাই ইমামতি করব না ৷ পরে হুজুর বলেছিলেন ঠিক আছে ইমামতি করবেন না শুধু আমাকে এক বার দেখে যান ৷ তখন আমি নতুন রাস্তা ভাল ভাবে চিনি না ৷ যাই হোক আমি মাওলানা মুহাম্মাদ জালালুদ্দীন কালারুকী সাহেবকে সাথে নিয়ে এক দিন হুজুরকে দেখার জন্য আক্সব্রিজ রওয়ানা দিলাম ৷ অর্ধেক রাস্তা যাবার পর দেখি ট্রেন লাইনে কাজ করানোর জন্য রাস্তা বন্ধ ৷ কি করা যায় বাসে যেতে হলে অনেক সময় লাগবে তাই এই দিন আমাদের যাওয়া বাতিল করলাম আর হুজুরকে ফোনে রাস্তার অবস্থার কথা বললাম ৷ হুজুর বললেন ঠিক আছে আপনারা ফিরে যান,আগামী সপ্তাহে আমি লন্ডন আসলে দেখা করবেন ৷ ঠিকই পরের সপ্তাহে হুজুরের সাথে আমি দেখা করলাম ৷ আমাকে বললেন ইমামতি না করলে ও যেন এই লাইনে থাকি, ছেলে মেয়েকে যেন পড়াই ৷ এর পর থেকে তাঁর সাথে প্রায় দেখা করতাম, বিভিন্ন সভায়, খানেকা মাহফিলে, আনেক সময় ফোন করে ও খবর নিতাম, কুশালাদী জিজ্ঞাস করতাম, তিনি ও আমার খোজ খবর নিতেন ৷ আমাকে অনেক স্নেহ করতেন ৷ বৃটেনের দলীয়, সামাজিক অনেক সভাতে দেখা হত ৷ তিনি দেশে ও এ দেশে বিভিন্ন ভাবে ইসলামের খেদমত করেছেন ৷ তিনি ইংরেজী ভাষায় কয়েকটি পুস্তক ও লিখেছেন ৷ তিনি বিশেষ কিছু রোগের তবীব করতেন ৷ বিশেষ করে ক্যানসার রোগের ৷ আমি কয়েক বার এর জন্য তাঁর ঘরে গেছি ৷ ২০১৫ ইংরেজীতে আমার আপন বড় ভাই তুল্য শ্রদ্ধাভাজন ভাই আলহাজ্ব শাহ আজহার হোসেন সাহেবের ক্যানসার রোগ ধরা পড়ার পর এই বছরের জুন মাসের ১৫ তারিখ রবিবার আমি ও আজহার ভাই তাঁর ঘরে যাই ৷ তিনি আজহার ভাইকে অনেক শান্তনা দিয়ে বললেন ইনশাআল্লাহ রোগ কমে যাবে, চিন্তা করবেন না ৷ এর পর একই কারণে আমার খুবই সম্পর্কের মানুষ ও এনফিল্ড আল ইসলাহর অন্যতম সদস্য মরহুম মোঃ শাহজাহান সাহেবকে নিয়ে এক দিন ও জনাব মোঃ বদরুল ইসলাম সাহেবকে নিয়ে আরেক দিন ২০১৮ ইংরেজীর সেপ্টেম্বরে উনার ঘরে যাই ৷ আমাদেরকে অনেক আদর করছেন, খাওয়ায়েছেন ৷ এ ছাড়া আমি মাঝে মাঝে তাঁর ঘরে গিয়ে দেখা করতাম, তিনি খুবই আদর করতেন, খাওয়াতেন ও বিভিন্ন বিষয় নিয়ে অালোচনা করতেন ৷ এক দিন তাঁর সান্নিধ্যে অনেক বেশী সময় ছিলাম ৷ গত ১৯/০৬/২০১৮ ইং ২৬ রামাদ্ধান ১৪৩৯ হিজরী তাং সোমবার সিডকাপ শাহজালাল এডুকেশন সেন্টারে আনজুমানে আল ইসলাহ ইউকে, কেন্ট ব্রাঞ্চের উদ্যোগে “ইফতার মাহফিল” ছিল ৷ আমি আনজুমানে আল ইসলাহ উইকে, গ্রেটার লন্ডন ডিভিশনের জেনারেল সেক্রেটারী হিসাবে সে মাহফিলের প্রধান অতিথি ছিলাম ৷ আমরা সে দিন কয়েক জন সেখানে যাওয়ার পর সেই ব্রাঞ্চের প্রেসিডেন্ট ও মসজিদের খতিব হযরত হাফিজ মোঃ আব্দুল ওয়াদুদ সাহেব বললেন আমাদের ভাগ্য ভাল এই বার আমাদের মসজিদে “ইতিকাফ” করতেছেন হযরত মাওলানা মোঃ আজিজুর রহমান সাহেব, তিনি ও আমাদের আজকের মাহফিলের অতিথি ৷ আমরা বললাম আলহামদুলিল্লাহ ৷ আমরা ইফতারের অনেক আগে সেখানে চলে গেছি ৷ আমরা হুজুরের সাথে দেখা করলাম, কোশলাদী জিজ্ঞাস করলাম হুজুর ও আমাদের খোঁজ খবর নিলেন আর বললেন আমি জানি আপনারা আসবেন, দেখা হয় গেল তার পর অনেক সময় বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা করলেন ৷ পরে মাহফিল শুরু হওয়ার সময় হওয়াতে আমি হুজুরকে বললাম আমরা আজ খুবই সৌভাগ্যবান কারণ আজকের মাহফিলে আপনাকে পেয়ে ৷ আমি বললাম আজ আপনি মাহফিলের প্রধান অতিথি ৷ প্রথমে হুজুর রাজি হন নায় পরে আমাদের অনুরোধে রাজি হয়ে এই মাহফিলের প্রধান অতিথি হিসাবে গুরুত্ব পূর্ণ বাংলা ও ইংরেজীতে আলোচনা করলেন পরে এক সাথে ইফতার করলাম ৷ নামাজ শেষে আর কিছু সময় বসে আলাপ আলোচনা করে বিদায় নিয়ে আমরা চলে আসি ৷ এই দিনের আগে ও পরে একান্ত ভাবে আর কোন দিন তাঁর সান্নিধ্যে এত দীর্ঘ সময় কাঠানো হয় নাই ৷ পরে বিভিন্ন সভায় ও খানেকায় দেখা হয়ছে, আলাপ হয়ছে, ফোনে আলাপ হয়ছে ৷ বিশেষ করে যখন শুনতাম তিনি অসুস্থ তখনি ফোন করতাম তাঁকে না পেলে তাঁর ছেলে মোঃ আব্দুল বাতিন সাহেব, জামাতা মোঃ মাহবুবুর রহমান সাহেব, মোঃ আব্দুল লতিফ লছনু সাহেব, মাওলানা মাহমুদুর রহমান চৌধুরী সাহেবের কাছ থেকে খোঁজ খবর নিতাম, ইন্তেকাল পর্যন্ত খবর নিয়েছি ৷ এই বছরের এপ্রিল মাসে আমার অসুস্থতার খবর শুনে যে ভাবে আমার খবর নিয়েছেন তা আমি কোন দিন ভুলব না ৷ কয়েক দিন কিছু সময় পর পর তিনি নিজে কখন ও তাঁর ছোট ছেলে মোঃ আব্দুল হাই চৌধুরী আমিন কে দিয়ে ফোন করে খবর নিয়ে অনেক পরামর্শ দিতেন ৷ আর কোন দিন আলাপ হবেনা, দেখা হবেনা, ফোনে ও কথা হবেনা ৷ তিনি গত ১৪/১২/২০২০ ইংরেজী তারিখ সোমবার ইংল্যান্ডের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আল্লাহ তায়ালার ডাকে সাড়া দিয়ে আমাদের ছেড়ে না ফিরার দেশে চলে যান ৷ ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন ৷ তাঁর জানাযা ও দাফনে আমার শরীক হওয়ার সৌভাগ্য হয়ছিল ৷ এই সব দিনের কথা, স্সৃতি কোন দিন ভুলব না, যত দিন বাঁচব তত দিন স্বরণ থাকবে ৷ আজ তিনি দুনিয়াতে নাই আছে শুধু স্সৃতি ৷ দোয়া করি আল্লাহ পাক যেন হুজুরকে জান্নাতুল ফিরদাউস নসিব করেন ৷ আমিন *******************************************************৷
লেখক পরিচিতি ; : মাওলানা মোঃ আব্দুল কুদ্দুছ
কাউন্সিল মেম্বার-সেন্ট্রাল কমিটি
ভাইস প্রেসিডেন্ট-গ্রেটার লন্ডন ডিভিশন
আনজুমানে আল ইসলাহ ইউকে,
প্রতিষ্ঠাতা ট্রাষ্টি-
মোহাম্মদ মনোহর আলী ট্রাষ্ট,
প্রতিষ্ঠাতা সদস্য ও বর্তমান সহ সভাপতি-
জকিগঞ্জ ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশন ইউকে,
উপস্থাপক-
রেডিও ও টেলিভিশন-লন্ডন
এবং বিভিন্ন সংগঠনের সাথে জড়িত ৷
তাং-২৭/১২/২০২০ ইং, রবিবার

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত