মঙ্গলবার, ১০ অগাস্ট ২০২১ খ্রীষ্টাব্দ | ২৬ শ্রাবণ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ



চাঁদপুর সরকারি হাসপাতালে করোনা আইসোলেশন ওয়ার্ডে স্বামীর মৃত্যুর পর ছুরি নিয়ে স্ত্রীর দৌড়া-দৌড়িতে আতঙ্কিত হয়ে পড়েন রোগীর স্বজন ও চিকিৎসকরা।
করোনায় আক্রান্ত হয়ে ওই নারীর স্বামী চিকিৎসাধীন অবস্থায় শুক্রবার দুপুরে আইসোলেশন ওয়ার্ডে মারা যান।

আকস্মিক ওই নারীর সঙ্গে থাকা একটি ধারালো ফল কাটার ছুরি নিয়ে ওয়ার্ডে রোগীর স্বজনদের পাশাপাশি চিকিৎসক ও নার্সদের ধাওয়া করেন । একপর্যায়ে তিনি জ্ঞান হারিয়ে হাসপাতালে মেঝেতে শুয়ে পড়েন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জ উপজেলার দক্ষিণ রুপসা এলাকার দেলোয়ার হোসেন ৫ আগস্ট করোনার উপসর্গ নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন। তার নমুনা পরীক্ষায় করোনা শনাক্ত হয় । চিকিৎসাধীন অবস্থায় শুক্রবার দুপুরে তিনি মারা যান।

এ ঘটনায় তার স্ত্রী কুলসুমা বেগম মানসিক ভারসাম্য হারিয়ে ছুরি নিয়ে করোনা ওয়ার্ডের নার্স ও অন্যান্য রোগীর স্বজনদের ধাওয়া করেন। এক পর্যায়ে হাসপাতালে কর্মচারীদের সহায়তায় ওই নারী শান্ত হন । পরে তিনি জ্ঞান হারিয়ে হাসপাতালের মেঝেতে শুয়ে পড়েন।

হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ও করোনা বিষয়ক ফোকালপার্সন ডা. সুজাউদ্দৌলা রুবেল বলেন, একদিন আগেই দেলোয়ার হোসেন হাসপাতালে ভর্তি হন। তার অক্সিজেন লেভেল খুবই কম ছিল ।

আমরা যথাসাধ্য চেষ্টা করেছি। মৃত্যুর পর তাঁর স্ত্রী মানসিকভাবে ভেঙে পড়েন। এক পর্যায়ে তার হাতে থাকা ফল কাটার ছুরি নিয়ে ওই ওয়ার্ডের মানুষকে আঘাত করার চেষ্টা করেন । পরে সবাই মিলে তাকে শান্ত করা হয়।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত