বুধবার, ১৮ অগাস্ট ২০২১ খ্রীষ্টাব্দ | ৩ ভাদ্র ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

বৃহত্তর সিলেট অঞ্চলের প্রখ্যাত প্রবীন আলেমে দ্বীন আল্লামা আব্দুল কাইয়ূম সিদ্দিকী হুজুর এর চীর বিদায়, মন্ত্রী সহ বিভিন্ন মহলের শোক প্রকাশ




ফয়ছল মনসুর,
হাজার হাজার মুসল্লীগনের উপস্থিতিতে, লক্ষ লক্ষ মানুষকে কাঁদিয়ে চির বিদায় নিলেন মৌলভীবাজার টাউন কামিল মাদরাসার সাবেক অধ্যক্ষ, বৃহত্তর সিলেটের প্রবীন আলেমে দ্বীন আল্লামা আব্দুল কাইয়ুম সিদ্দিকী হুজুর রহঃ।
১৩ আগস্ট দুপুর আড়াইটায় মৌলভীবাজার টাউন ঈদগাহে
অনুষ্টিত প্রথম জানাজার নামাজ উপমহাদেশের প্রখ্যাত আলেম সাহেব কিবলা ফুলতলীর দ্বিতীয় ছেলে বিশিষ্ট মাওলানা আল্লামা নজুমুদ্দীন চৌধুরী ফুলতলীর ইমামতিতে হাজার হাজার মুসল্লি, সামাজিক ও রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গ তার জানাজার নামাজে অংশগ্রহণ করেন। করোনা আতঙ্ক উপেক্ষা করে সিলেট বিভাগের বিভিন্ন এলাকা থেকে সর্বস্তরের মানুষে ঈদগাহ ময়দান কানায় কানায় পূর্ণ হয়ে যায়।

তাঁর প্রথম জানাজার নামাজের পূর্বে মৌলভীবাজার জেলা আল ইসলাহর সাধারণ সম্পাদক মাওলানা আব্দুল আলিম ও যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাওলানা হাফিজ এনামুল হকের যৌথ পরিচালনায় জানাজার নামাজ পূর্বে স্মৃতিচারণমূলক
সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন মৌলভীবাজার-৩ আসনের সংসদ সদস্য নেছার আহমদ এমপি , বাংলাদেশ আঞ্জুমানে আল ইসলাহ কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি মাওলানা হুসাম উদ্দিন চৌধুরী ফুলতলী, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মিসবাহুর রহমান, পৌর মেয়র মো. ফজলুর রহমান, সিনিয়র সাংবাদিক ও মাদ্রাসা পরিচালনা কমিটির সদস্য বকশী ইকবাল আহমদ, সদর উপজেলার সাবেক চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান মিজান প্রমুখ। পরিবারের পক্ষে বক্তব্য রাখেন মরহুমের পুত্র তানজুম আহমদ সিদ্দিকী। পরে বিকাল সাড়ে ৫টায় বড়লেখা উপজেলার মুড়াউল নিজগ্রামে তার দ্বিতীয় জানাজার নামাজ শেষে মা-বাবার পাশে পারিবারিক কবরস্থানে তাঁকে দাফন করা হয়েছে। মৃত্যুকালে তিনি ৩ ছেলে, ৩ মেয়ে, নাতি নাতনিসহ অসংখ্য ছাত্রশিক্ষক ও আত্মীয়স্বজন রেখে গেছেন।
পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার রাত ১ঃ৩০ মিনিটে মৌলভীবাজার শহরের পশ্চিম বাজার এলাকার গুলবাগস্থ নিজ বাসায় তিনি ইন্তেকাল করেন। তাঁর মৃত্যুতে মৌলভীবাজারসহ বৃহত্তর সিলেটের ধর্মপ্রাণ মুসল্লি ও আলেম-উলামাদের মধ্যে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।
এদিকে সিলেট বিভাগের বড়লেখার কৃতি সন্তান বিশিষ্ট আলেমেদ্বীন মাওলানা আব্দুল কাইয়ুম সিদ্দিকীর মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন পরিবেশ বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী মোঃ শাহাব উদ্দিন এমপি, বাংলাদেশের ইসলামী ঐক্যজোটের কেন্দ্রীয় চেয়ারম্যান মিছবাহুর রহমান চৌধুরী, ও বৃটেন থেকে ইউকে বিডি টিভির চেয়ারম্যান ও ডেইলি সিলেট এন্ড দৈনিক মৌলভীবাজার মৌমাছিকন্ঠের সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি মোহাম্মদ মকিস মনসুর, এছাড়া ও তাঁর মৃত্যুতে কেন্দ্রীয় আল ইসলাহর সভাপতি মাওলানা হুছামুদ্দীন চৌধুরী ফুলতলী ও মহাসচিব অধ্যক্ষ একেএম মনোওর আলী, মৌলভীবাজার জেলা আল ইসলাহর সভাপতি অধ্যক্ষ মাওলানা শামছুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক মাওলানা আব্দুল আলিম সহ জেলা আল ইসলাহ ও তালামীযে ইসলামীয়ার পক্ষ থেকে শোক প্রকাশ করেছেন।শোক বার্তায় মরহুম মাওলানা জনাব আব্দুল কাইয়ুম সিদ্দিকী একজন সর্বজন শ্রদ্ধেয় আলেমে দ্বীন ছিলেন৷ মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করে শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।
উল্লেখ্য, তিনি ছিলেন হযরত আল্লামা ফুলতলী (র.)-এর অন্যতম খলিফা। তার হাজারো শিক্ষার্থী ও অনুসারী রয়েছেন।আল্লামা আব্দুল কাইয়ূম সিদ্দিকী ১৯৫৪ সালে বড়লেখা উপজেলার মুড়াউল গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। পড়াশুনা সম্পন্ন করে বিভিন্ন মাদরাসায় তিনি শিক্ষকতা করেন। মৌলভীবাজার টাউন কামিল মাদরাসায় অধ্যক্ষ হিসাবে ৩৪ বছর দায়িত্ব পালন করে অবসর গ্রহণ করেন। তিনি উপমহাদেশের প্রখ্যাত বুযুর্গ আল্লামা আব্দুল লতিফ চৌধুরী ফুলতলী (র.) নিকট থেকে ইলমে তরিকতের তালিম নেন এবং তার নিকট থেকে খেলাফতি লাভ করেন। সাংগঠনিকভাবে তিনি আনজুমানে আল-ইসলাহ মৌলভীবাজার জেলা শাখার সভাপতির দায়িত্ব দীর্ঘদিন পালন করেন ও কেন্দ্রীয় শুরা সদস্য ছিলেন। এছাড়া মাদরাসায় অধ্যক্ষ থাকাকালীন মাদরাসা শিক্ষকদের সংগঠন জমিয়তুল মোদার্রেছীনেরও সভাপতির দায়িত্ব পালন করেছেন। তার সুদীর্ঘকালের শিক্ষকতার জীবনে হাজার হাজার মুফতি, মাওলানা, মুহাদ্দিস ও ফকিহ তৈরি করেছেন। বৃহত্তর সিলেটের প্রায় সকল আলিয়া মাদরাসায় তার ছাত্ররা শিক্ষকতা করছেন।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত