মঙ্গলবার, ১৬ নভেম্বর ২০২১ খ্রীষ্টাব্দ | ২ অগ্রহায়ণ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

কথাসাহিত্যিক হাসান আজিজুল হক চলে গেছেন না ফেরার দেশে,,,।



উপমহাদেশের প্রখ্যাত কথাসাহিত্যিক হাসান আজিজুল হক আর নেই (ইন্নালিল্লাহি…রাজিউন)। সোমবার দিবাগত রাত সোয়া ৯টার দিকে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় সংলগ্ন শিক্ষকদের আবাসিক এলাকা বিহাসে নিজ বাস ভবনে তিনি মারা যান।
মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৮২  বছর। মৃত্যুকালে তিনি এক ছেলে ও তিন মেয়ে রেখে গেছেন। স্ত্রী শামসুন্নাহার কয়েক বছর আগেই প্রয়াত হন।

অধ্যাপক হাসান আজিজুল হকের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছেন রাবির গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের অধ্যাপক মোজাম্মেল হোসেন বকুল। কিছুদিন ধরে তিনি বার্ধক্যজনিত নানান সমস্যায় ভুগছিলেন।
হাসান আজিজুল হকের মৃত্যুতে গভীর শোক জানিয়েছেন রাজশাহী সিটি মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন ও রাবি উপাচার্য প্রফেসর ড. গোলাম সাব্বির সাত্তার। তারা শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।
প্রয়াত কথা সাহিত্যিক অধ্যাপক আজিজুল হকের ছেলে অধ্যাপক ইমতিয়াজ হাসান যুগান্তরকে জানান, মঙ্গলবার বাদ জোহর রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় মসজিদে মরহুমের নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হবে। এরপর দাফন করা হবে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় গোরস্থানে।
এর আগে শোক জ্ঞাপনের জন্য রাবি শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে রাখা হবে মরদেহ। এর আগে  গত ২১ আগস্ট অধ্যাপক হাসান আজিজুলকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় নেওয়া হয়। তিনি অনেকটা সুস্থ গত ৯ সেপ্টেম্বর রাজশাহীতে ফেরেন।
কথাসাহিত্যিক হাসান আজিজুল হকের জন্ম ১৯৩৯ সালের ২ ফেব্রুয়ারি ভারতের পশ্চিমবঙ্গের বর্ধমান জেলার যবগ্রামে। এখন তার বয়স ৮২ বছর। রাজশাহী কলেজ থেকে দর্শনশাস্ত্রে স্নাতক সম্মান ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রী নিয়ে ১৯৭৩ সালে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতায় যোগ দেন। অবসর নেন ২০০৪ সালে। ঢাবির বঙ্গবন্ধু চেয়ারে ছিলেন ২০০৯ সালে। অবসর জীবন কাটাচ্ছিলেন লেখালেখি করে।
হাসান আজিজুল হক একুশে পদকসহ আনন্দ পুরস্কার পেয়েছেন দুইবার। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় সংলগ্ন রাবি শিক্ষকদের আবাসিক এলাকা বিহাসে বসবাস করেন। দাম্পত্যসঙ্গী শামসুন্নাহার বেগমের মৃত্যুর পর এই সাহিত্যিক বড় একা হয়ে পড়েন।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত