Sunday, April 22, 2018
মৌলভীবাজারে সরকারী মেডিকেল কলেজ দ্রুত বাস্তবায়নের দাবীতে লন্ডনে গোলটেবিল বৈঠক সম্পন্ন: এক নব- ইতিহাসের সূচনা » « বৃটেনের লন্ডন শহরে দিনব্যাপী ‘সিলেট উৎসব সম্পন্ন » « অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ জাফর ইকবাল এর ওপর হামলার তীব্র নিন্দা ও হামলাকারীদের সর্বোচ্চ শাস্তি দাবি করেছেন জাস্টিস ফর বাংলাদেশ জেনোসাইড ১৯৭১ইন ইউকের নেতৃবৃন্দ » « অর্থমন্ত্রীর সাথে সাংবাদিক সেলিম আহমেদ’র সৌজন্য সাক্ষাৎ » « স্কীল ওয়ার্কারদের বৈধতার দাবীতে লন্ডনে শ্যাডো মিনিস্টারের সাথে সৌজন্য সাক্ষাৎ ও স্মারকলিপি প্রদান » « বৃটেনের কার্ডিফে যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান একুশ ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত » « ইউকে কাডিফ বাংলাদেশ ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে মহান একুশ ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত » « ইউনেস্কোর ‘মেমোরি অফ দা ওয়ার্ল্ড ইন্টারন্যাশনাল রেজিস্টারে’ যুক্ত হওয়া ঐতিহাসিক ৭ই মার্চের ভাষণ: বঙ্গবন্ধুর অমর কাব্য » « ভয়াবহ তুষারপাতে বিপর্যস্থ হয়ে পড়েছে ওয়েলস সহ সমগ্র বৃটেন » « গ্রেটার সিলেট কাউন্সিল ইউকের নির্বাচনে মাহবুব-মকিস-রানা প্যানেলের চেয়ার মার্কার সমর্থনে ওয়েস্ট বার্মিংহামে নির্বাচনী সভা অনুষ্টিত

সরকারের চোখে কাঠের চশমা!

বর্তমান বাংলাদেশে দ্রব্যমূল্যে বেড়েই চলছে। বাংলাদেশের ইতিহাসে আর কোনদিন এভাবে বাজার পরিচালিত হয়নি। আমার মনে হয় বাংলাদেশে কোন সরকার নেই। থাকলেও ব্যবসায়ীর কাছে জিম্মি। না হয় সরকারের লোকজন বাজারে সিন্ডিকেট চালাচ্ছে। দেশের রাস্তাঘাট, ব্রিজ-কালভার্ট ও তথ্য প্রযুক্তিতে বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে বর্তমান সরকার।

তবে সরকারের উন্নয়ন ম্লান হয়ে যাচ্ছে নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের দাম সাধারণ মানুষের নাগালের মধ্যে না থাকার কারণে। প্রতিটি সেক্টরে একজন করে মন্ত্রী আছেন। তাদের কাজ হলো সেই সেক্টরের তদারকি করা এবং সকল সমস্যার সমাধন করা যদি সেটা সঠিকভাবে করা হয় তাহলে কি করে এভাবে হু হু করে দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি পেল। যার কারণে সবদিকে উন্নয়ন করা সরকার আজ সমলোচনার মুখে পড়েছে। যদি এভাবে চলতে থাকে আর কোন প্রকার সমস্যা সমাধান করা না হয় তাহলে আগামী নির্বাচনে কাঁদতে হবে। শুধু দায়সারা বিবৃতি দিয়ে গুলশানের জাকজমকপূর্ণ বাসভবনে এসির মধ্যে আনন্দ বিলাসে মধ্যে মেতে থাকলেই হবে না।

খাদ্যমন্ত্রীর কাছে বর্তমান বাজারের খবর আছে কি? ১ কেজি পেঁয়াজের দাম ৭৫ টাকা, ১ কেজি মোটা চালের দাম ৫৪ টাকা, ১ কেজি সিম ১৫০ হতে ১৬০ টাকা, কাঁচা মরিচ প্রতি কেজি ১৫০ হতে ১৮০ পর্যন্ত বিক্রি হচ্ছে। ৫০-৬০ টাকার নিচে কোন তরকারি নেই। এর প্রধান কারণ বাজার তদারকি না করা। একটি মধ্যবিত্ত পরিবারে যদি একজন ব্যক্তি আয় করেন। তা দিয়ে পরিবারের ৬-৭ জন মানুষের খাবার যোগাড় হয়। তবে যে হারে দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি পাচ্ছে সে হারে তার আয় বাড়ছে না। ফলে বেকায়দায় পরছেন অনেকে।আর নিম্ন আয়ের মানুষ তো দিশেহারা হয়েছেন কি হবে তাদের ভবিষ্যৎ? বাজারের কোন পণ্য স্থিতিশীলতা নেই কেন? মিয়ানমার থেকে ৬ লাখ রোহিঙ্গা যখন বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে। সেটি সামলাতে সরকার যখন ব্যস্ত তখনই একটি মহল মিথ্যা প্রচারণা চালিয়ে চালের বাজার অস্থির করছে এমনটাই বলেছেন মন্ত্রী।

যদি এটাই হয় তাহলে তারা কারা? তাদের দ্রুত আইনের আওতায় এনে শাস্তি দেয়া হোক। চালের গুদামে অভিযানের পর চালের দাম আরো বেড়ে যায়। ব্যসায়ীদের এই সাহস কি করে হয়? দেশে আইন আছে। আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নিয়ে দেশের বাজার ব্যবস্থা একটি সহনশীল পর্যায়ে নিয়ে আসুন। দয়া করে সাধারণ মানুষকে আর ভোগাবেন না। সরকারের উচিত দেশের সব বিষয়ে আরও বেশি নজরদারি করা। সরকার তার আমলাদের কথায় চোখে কাঠের চশমা পড়ে থাকলে হবে না। চোখ কান খোলা রেখে সাধারণ মানুষের পাশে দাঁড়াতে হবে।

লেখক: এম এম আশরাফুল আলম।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত

সর্বশেষ সংবাদ

April 2018
M T W T F S S
« Mar    
 1
2345678
9101112131415
16171819202122
23242526272829
30