বুধবার, ৭ ডিসেম্বর ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

জুড়ীতে চা শ্রমিকের লাশ উদ্ধার : ছুরিকাঘাতে অপর শ্রমিক নিহত



Juri Dead Body 1

জুড়ী প্রতিনিধি : মৌলভীবাজারের জুড়ীতে বৃহস্পতিবার দুপুরে এক চা শ্রমিকের লাশ উদ্ধার করেছে থানা পুলিশ। রত্না চা বাগানে ছুরিকাঘাতে অপর এক চা শ্রমিক নিহত হয়েছে।  বৃহস্পতিবার দুপুরে জুড়ী উপজেলার সাগরনাল ইউনিয়নের কাপনাপাহাড় চা বাগানের ৪নং সেকশন এলাকা থেকে লকিয়া উরাং (৬০) নামের এক ব্যক্তির লাশ উদ্ধার করে থানা পুলিশ। কাপনাপাহাড় চা বাগানের বিরগোগালীর বাসিন্দা লকিয়ার পুত্র চন্দন (২২) অভিযোগ করে জানায়, গত বুধবার সন্ধ্যায় তার ছোট ভাই দিলীপ (২০) বিরগোগালী পূর্বটিলার জয়নন্দের কন্যা মুন্নি (১৮) কে নিয়ে পালিয়ে যায়। রাতে তার বাবা দিলীপকে বিভিন্ন স্থানে খোঁজ নিলেও সন্ধান পাওয়া যায়নি। বৃহস্পতিবার দুপুর ২টার দিকে বাগানের ৪নং সেকশনের একটি নালার পাশে চা শ্রমিকরা তার লাশ পড়ে থাকতে দেখে। মুন্নির পরিবারের লোকজন এ হত্যাকা- ঘটাতে পারে বলে তাদের ধারণা। লাশের ঘাড়ে দায়ের কোপ রয়েছে বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন। খব পেয়ে জুড়ী থানার পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়না তদনেত্মর জন্য বিকেলে মৌলভীবাজার মর্গে পাঠিয়েছে।
এদিকে রত্না চা বাগান এলাকায় ছুরিকাঘাতে অপর এক চা শ্রমিক নিহত হয়েছে। বাগান কর্তৃপড়্গ ও থানা পুলিশ সূত্র জানায়, বাগানের ১নং লাইনের বাসিন্দা মৃত নাতু রাজভরের ছেলে চা শ্রমিক রঞ্জিত রাজভর (৪০) বৃহস্পতিবার দুপুরে প্রতিবেশী ছোটসাধুর সাথে নারীঘটিত বিষয়ে ঝগড়া করে। এক পর্যায়ে দা নিয়ে তার ওপর হামলা চালায়। এ ঘটনায় ছোটসাধুর ছেলে বাগান শ্রমিক গৌতম সূর্যবংশী (২২) সঙ্গীয় কয়েকজন লোক নিয়ে বিকেল ৪টার দিকে বড় বাবু লাইন এলাকায় রঞ্জিতের ওপর হামলা চালিয়ে পেটের মধ্যে ধারালো ছুরি দিয়ে আঘাত করে। এতে ঘটনাস্থলেই রঞ্জিতের মৃত্যু ঘটে। বাগান কর্তৃপড়্গের মাধ্যমে খবর পেয়ে জুড়ী থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে লাশ উদ্ধার করে। এ সময় ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে গৌতম সূর্যবংশী, মিলন সূর্যবংশী ও বিক্রম সূর্যবংশী নামে তিন জনকে আটক করে।
জুড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ মাহবুবুর রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, লাশ দু’টি ময়না তদনেত্মর জন্য মৌলভীবাজার মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় একটি হত্যা মামলা হয়েছে। অপরটির মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।