বুধবার, ৭ ডিসেম্বর ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

কমলগঞ্জে অভিনব পন্থায় গরম্ন চুরি করতে গিয়ে প্রাইভেট কার আটক



কমলগঞ্জ প্রতিনিধি : মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জের নূরজাহান চা বাগান থেকে অভিনব পন্থায় ইনজেকশন পুশ করে প্রাইভেট কারযোগে গরম্ন চুরি করে নিয়ে যাওয়ার সময় একটি প্রাইভেট কার আটক করেছে জনতা। স্থানীয় জনতার ধাওয়ায় কার ও গরম্ন রেখে চোরচক্র পালিয়ে যায়। প্রায় দুই বছর থেকে এভাবে বাগান থেকে গরম্ন চুরি হচ্ছিল বলে জানা গেছে। বাগান কর্তৃপড়্গ সূত্র জানায়, কমলগঞ্জ উপজেলার মাধবপুর ইউনিয়নের নূরজাহানসহ অন্যান্য চা বাগান থেকে প্রায়ই গরম্ন চুরি হয়। কিন্তু স্থানীয়রা এই চুরির কোন সুরাহা করতে পারছিলেন না। বৃহস্পতিবার বিকেলে সাড়ে ৩টার দিকে বাগানের ১২ নং সেকশন থেকে কারের মধ্যে একটি গরম্ন তুলে চোরচক্র। দৃশ্যটি এক কিশোরের দৃষ্টিগোচর হয়। সাথে সাথে সে বিষয়টি অন্যান্যদের জানায়। তখন বাগান থেকে মোবাইল ফোনে নূরজাহান খাসিয়া পলস্নীর মানুষের সহযোগিতায় স্থানীয়রা কারটি আটকানোর চেষ্টা করেন। চালক দ্রম্নত পিছন দিকে কার উল্টো চালিয়ে বাগানের রাসত্মায় প্রবেশ করে। পাহাড়ি এলাকা হওয়ায় এক সময় চালকসহ অন্যান্য চুরেরা কার রেখে পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয়রা কারের পিছন থেকে গরম্ন বের করে কারটিতে ব্যাপক ভাংচুর চালান। খবর পেয়ে কমলগঞ্জ থানার এসআই মোশাররফ হোসেনের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে কার (ঢাকা মেট্রো-ক ০৩-৭৭৭৬) জব্দ করেন। স্থানীয়রা জানান, কারের মধ্যে একটি সিরিঞ্জ পাওয়া যায়। ধারণা করা হচ্ছে, মাঝারি আকারের গরম্নকে চোরচক্র ইনজেকশন পুশ করে নিসেত্মজ করে কারের মধ্যে তুলে নেয়। গত দুই বছরে বাগানগুলো থেকে ৫২ টি গরম্ন চুরি হয়েছে। কমলগঞ্জ থানার এসআই মোশাররফ হোসেন জানান, এখন পর্যনত্ম কোনো মামলা হয়নি। তবে কার পুলিশের হেফাজতে রয়েছে।
এদিকে কমলগঞ্জ পৌরসভায় পাগলা কুকুরের কামড়ে বৃহস্পপতিবার দুপুরে শিশুসহ ১০ জন আহত হয়েছে। এলাকাবাসী সূত্র জানায়, কমলগঞ্জ পৌরসভার ৬নং ওয়ার্ডের ভানুগাছ চৌমুহনা এলাকার দক্ষিণ কুমড়কাপন বাজার রোডে বৃহস্পতিবার দুপুর ১টায় পাগলা কুকুরের কামড়ে প্রথমে স্থানীয় সমাজকর্মী শাহনেওয়াজ এলাহীর ছেলে কমলগঞ্জ ইসলামিক একাডেমীর ২য় শ্রেণীর ছাত্র ছামি এলাহী আহত হয়। পরে একই এলাকার পপি বেগম, সোহান আহমদ, শামীম আহমদ, জামাল আহমদসহ ১০ জন শিশু-কিশোর কুকুরের কামড়ে আহত হয়। আহতদের প্রথমে কমলগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপেস্নক্সে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়। প্যানেল মেয়র-১ আনোয়ার হোসেন জানান, সংশিস্নষ্ট কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করে শীঘ্রই পৌর এলাকায় বেওয়ারিশ কুকুর নিধন অভিযান চালানো হবে।