রবিবার, ১৪ অগাস্ট ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ৩০ শ্রাবণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

নিহত গোলাম রাব্বানী পরিবারের আহাজারি



pic2 copy

বিশ্বনাথ প্রতিনিধি : বিশ্বনাথে গতকাল সকালে জামায়াত-পুলিশের সংর্ঘষের ঘটনায় গুলিবৃদ্ধি হয়ে নিহত জামায়াত কর্মী গোলাম রাব্বানী। তিনি উপজেলার খাজাঞ্জি ইউনিয়নের পাকিছিড়ি গ্রামের মুহিবুর রহমান নিজামের ছেলে। নিহত গোলাম রাব্বানী তার পিতার এক মাত্র ছেলে সন্তান ছিল। তবে তার চার বোন রয়েছেন। নিহত গোলাম রাব্বানীর পরিবারের আহাজারিতে এলাকার আকাশ বাতাস বাড়ি হয়ে পড়েছে। একমাত্র ছেলেকে হারিয়ে পরিবারের সদস্যরা দিশেহারা হয়ে পড়েছেন।
সরজমিনে গতকাল দুপুরে নিহতের বাড়িতে গিয়ে দেখা যায়, নিহতে পিতা মুহিবুর রহমান নিজাম ও মাতা আছিয়া বেগম কান্নায় ভেঙ্গে পড়ে শুধু ছেলে কে এনে দেওয়ার কথা বলছেন। খবর পেয়ে নিহতের আত্বীয়-স্বজন তার বাড়িতে এসেছে। কিন্তু কেউ গোলাম রাব্বানীর পরিবারের কান্না থামাতে পারছেনা। তাদের আহাজারিতে এলাকার আকাশ বাতাস ভারি হয়ে পড়েছে। খবর পেয়ে এলাকার শতশত মানুষ তাদের বাড়িতে ভির করতে দেখা যায়।
নিহতের পিতা মুহিবুর রহমান নিমাজ (৬৫) জানান, ভোর বেলায় একটি ডিম খেয়ে বাড়ি থেকে বের হয়। তবে কোথাও যাবে সে কথা আমাদের বলেনি। সকাল ১০টায় খবর পাই গোলাম রাব্বানী গুলিবৃদ্ধি হয়ে নিহত হয়। এভাবে তার মৃত্যু হবে কখনও ভাবিনি।
এলাকাবাসি জানান, গোলাম রাব্বানী একজন ভাল যুবক ছিল। তার সাথে এলাকার কারও কোন বিরোধ ছিল না। তবে সে জামায়াতের রাজনীতির সাথে জড়িত ছিল। তবে এভাবে তার মৃত্যু হবে কেউ কল্পনা করেনি।
তিনি বলেন, গোলাম রাব্বানী নিজের কৃষি খেতে কাজ করে আসছিল। তার ওপর নির্ভর করে আমাদের পরিবার চলে। কিন্তু  নিহতের মা আছিয়া বেগম এর সাথে কথা বলতে চাইলে তিনি কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন। এখন আমরা কিভাবে চলবে ভেবে পাচ্ছিনা। তিনি ছেলে হত্যার বিচার দাবি করেন।