সোমবার, ২৮ নভেম্বর ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

অপহৃত শ্রমিক উদ্ধার, ধর্মঘট প্রত্যাহার: বড়লেখার পাল্লাথল ও আয়শাবাগ চা বাগানের ভূমি নিয়ে বিরোধে সভা



বড়লেখা প্রতিনিধি : মৌলভীবাজারের বড়লেখার উত্তর শাহবাজপুরে অবস্থিত পাল্লাথল চা বাগান ও আয়শাবাগ চা বাগানের সীমানার ভূমি নিয়ে বিরোধের ব্যাপারে স্থানীয় সংসদ সদস্যের বাসভবনে এক সমঝোতা সভা অনুষ্ঠিতহয়। অপরদিকে অপহৃত শ্রমিকদের উদ্ধার করে বাগানে হস্তান্তর করেছে থানা পুলিশ। পাশাপাশি শ্রমিকরা ধর্মঘট প্রত্যাহার করে কাজে যোগ দিয়েছে। 
সূত্র জানায়, পাল্লাথল বাগানের কয়েকজন শ্রমিককে পার্শ্ববর্তী আয়শাবাগ চা-বাগানের শ্রমিকরা অপহরণ করে নিয়ে যাওয়ার জের ধরে গত ৩ এপ্রিল সকাল থেকে কাজ বন্ধ রেখে ধর্মঘট করে শ্রমিকরা। গত মঙ্গলবার বিকেলে পাল্লাথল চা বাগানে কর্মরত শিশু, নারী ও পুরুষসহ কয়েকজন শ্রমিককে অপহরণ করা হয়।
বাগান কর্তৃপক্ষ সূত্র জানায়, পাল্লাথল বাগানের ৫ নম্বর সেকশন এলাকায় ৫২ একর জায়গার মালিকানা নিয়ে পাল্লাথল চা বাগানের সাথে পার্শ্ববর্তী আয়শাবাগ বাগানের বিরোধ চলে আসছে দীর্ঘদিন ধরে। স্থানীয় উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে কিছুদিন আগে বিরোধপূর্ণ ভূমিতে জরিপও করা হয়। গত ১ এপ্রিল রাতে দুর্বৃত্তরা দা ও লাঠিসোটা নিয়ে বিরোধপূর্ণ জায়গায় প্রবেশ করে পাল্লাথলের সাজু, বঙ্কিম, মানিক এবং শুক্রা নামের ৪ শ্রমিকের বসতবাড়ি গুঁড়িয়ে দেয় এবং গাছপালা কেটে ফেলে। ২ এপ্রিল সকালে আয়শাবাগ চা-বাগানের শ্রমিকরা বিরোধপূর্ণ জায়গায় তড়িঘড়ি করে খুঁটি ও কাঁটাতারের বেড়া দিয়ে জায়গাটি দখলে নেওয়ার চেষ্টা চালায়। এ সময় পাল্লাথল চা বাগানের শ্রমিকেরা বাঁধা দিলে দু’পরে মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে।
এদিকে ২ এপ্রিল বিকেল ৪টার দিকে বিরোধপূর্ণ জায়গায় কাজ করতে গেলে আয়শাবাগ বাগানের শ্রমিকেরা পাল্লাথল বাগানের ১৫-২০ জন শ্রমিককে জোরপূর্বক অপহরণ করে নিয়ে যায় বলে বাগানের সহকারী ব্যাবস্থাপক জাকির হোসেন অভিযোগ করেন। এ ঘটনায় বিকেলে পাল্লাথল চা বাগানের সহকারী ব্যবস্থাপক জাকির হোসেন থানায় লিখিত অভিযোগ দেন। শ্রমিক অপহরণ ও বসতবাড়িতে হামলা ও গাছপালা কেটে ফেলার প্রতিবাদে পাল্লাথল বাগানের শ্রমিকরা ৩ এপ্রিল সকাল ৯টা থেকে বাগানে কাজ বন্ধ রেখে ধর্মঘট পালন করতে থাকে। এ সময় শ্রমিকরা কারখানার সামনের সড়কে জড়ো হয়ে বিভিন্ন শ্লোগানসম্বলিত পেস্নকার্ড নিয়ে বিােভ প্রদর্শন করে।
এদিকে দু’টি বাগানের সীমানার ভূমি নিয়ে বিরোধের ব্যাপারে এক সমঝোতা বৈঠক গত ৪ এপ্রিল রাতে স্থানীয় সংসদ সদস্য শাহাব উদ্দিনের বাসভবনে অনুষ্ঠিত হয়। সভায় পুনরায় সীমানার ভূমি জরিপ এবং প্রাপ্য অনুযায়ী জায়গা সমজিয়ে দেওয়ার জন্য প্রশাসনের সংশ্লিষ্টদের প্রতি নির্দেশ দিয়েছেন।
অপরদিকে অপহৃত শ্রমিকদের গত ৩ এপ্রিল সন্ধ্যায় পার্শ্ববর্তী আয়শাবাগ চা বাগান থেকে উদ্ধার করে পাল্লাথল বাগান কর্তৃপরে কাছে হস্তান্তর করেছে থানা পুলিশ। অপহৃত শ্রমিকদের ফিরে পাওয়ায় বাগানের শ্রমিকরা ধর্মঘট প্রত্যাহার করে ৪ এপ্রিল থেকে কাজে যোগ দিয়েছে।
পাল্লাথল চা বাগানের সহকারী ব্যবস্থাপক জাকির হোসেন জানান, আমার বাগানের শ্রমিকেরা অপহৃত শ্রমিকদের ফিরিয়ে দেওয়ার দাবি জানিয়ে বিােভ করে। পরবর্তীতে থানা পুলিশের সহায়তায় অপহৃত শ্রমিকদের উদ্ধার করা হয়। বর্তমানে শ্রমিকরা ধর্মঘট প্রত্যাহার করে কাজে যোগ দিয়েছে।
আয়শাবাগ চা বাগানের ব্যাবস্থাপক মিজানুর রশীদ আনিত অভিযোগটি সত্য নয় বলে দাবি করে জানান, উল্লেখিত জায়গা আমাদের, চা শ্রমিকরা আমাদের বাগানের।
স্থানীয় ইউপি সদস্য ও খাসিয়া মন্ত্রী লোকাস বাহাদুর জানান, পাল্লাথল ও আয়শাবাগ বাগানের বিরোধপূর্ণ ৫২ একর জায়গা নিয়ে এখনও জরিপ কাজ চলছে। জরিপকালীন একটি প জায়গা দখল নেওয়ায় এলাকার আইন-শৃঙলা অবনতির দিকে চলে যাচ্ছে বলে আমরা আশংকা করছি। এ বিষয়ে প্রশাসনের ঊর্ধতন কর্তৃপরে আশু হস্তপে কামনা করেন তিনি।
থানা অফিসার ইনচার্জ কামরুল হাসান জানান, পাল্লাথল-আয়শাবাগ চা বাগানের ভূমি বিরোধ নিয়ে অভিযোগ পেয়েছি। পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। উভয়পকে নিয়ে সমঝোতার চেষ্টা চালানো হয়। ৩ এপ্রিল সন্ধ্যায় অপহৃত শ্রমিকদের উদ্ধার করে পাল্লাথল বাগান কর্তৃপরে কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার সৈয়দ আমিনুর রহমান জানান, আইন-শৃঙলা পরিস্থিতি কোন অবস্থাতে যেন অবনতি না ঘটে সেজন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য পুলিশকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। স্থানীয় এমপির হস্তেেপ বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। সীমানার ভূমি জরিপ করা হবে শীঘ্রই।