বৃহস্পতিবার, ১১ অগাস্ট ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ২৭ শ্রাবণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ইরানে ভূমিকম্প: নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৩৭



0

ডেস্ক রিপোর্ট : ইরানের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলীয় বুশেহের প্রদেশে দেশটির একমাত্র পরমাণু বিদ্যুৎ কেন্দ্রের কাছে মঙ্গলবার ৬ দশমিক ৩ মাত্রার ভূমিকম্পে অন্ততপক্ষে ৩৭ জন নিহত এবং ৮৫০ জন আহত হয়েছে বলে জানিয়েছে রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম।
শক্তিশালী এ ভূমিকম্পে বহু ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত ও দুটি গ্রাম পুরোপুরি ধ্বংস হয়ে গেছে বলে রেড ক্রিসেন্টের এক কর্মকর্তা ইরানি বার্তা সংস্থা আইএসএনএ কে জানিয়েছে।
তবে নিকটবর্তী বুশেহের পরমাণু প্রকল্পের কোনো ক্ষতি হয়নি বলে জানিয়েছে প্রকল্পটির নির্মাতা রুশ কোম্পানি ও ইরানি কর্মকর্তারা।
বুশেহের প্রদেশের গভর্নর ফেরেইদুন হাসানভান্দ বার্তা সংস্থা মেহরকে বলেছেন, “ভূমিকম্পের তীব্রতার কারণে ঘটনার শোচনীয়তা আরো বৃদ্ধি পাচ্ছে। দুর্গত অঞ্চলে অনেক ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত হয়েছে, ৩৭ জন নিহত হয়েছে ও ৮৫০ জনেরও বেশি মানুষ আহত হয়েছে।”
বুশেহেরের পল্লী অঞ্চলগুলোতে কাদামাটির তৈরি ইটের গাঁথুনি দিয়ে বেশিরভাগ বাড়িঘর নির্মিত হওয়ায় ভূমিকম্পে সেগুলো খুব সহজেই ভেঙে পড়েছে। এ রকম প্রায় ৭শ’ বাড়ি বিধ্বস্ত হয়েছে বলে জানিয়েছেন হাসানভান্দ।
পারস্য উপসাগরের অপর তীরে কাতার ও বাহরাইনেও ভূমিকম্প অনুভূত হয়েছে। এখানে ভূমিকম্পের পরপরই লোকজন কর্মস্থল ছেড়ে রাস্তায় নেমে আসে। দুবাইতেও ভূমিকম্প অনুভূত হয়েছে।
ভূমিকম্পটির উপকেন্দ্র বুশেহের বন্দরের ৮৯ কিলোমিটার দক্ষিণপূর্বে ছিল বলে যুক্তরাষ্ট্রের ভূতাত্ত্বিক জরিপ সংস্থা জানিয়েছে।
বুশেহের থেকে ১৮ কিলোমিটার দক্ষিণে অবস্থিত পরমাণু বিদ্যুৎ কেন্দ্রটিতে ভূমিকম্পের প্রভাব পড়েনি বলে জানিয়েছে নির্মাতা রুশ কোম্পানি।
কোম্পানির এক কর্মকর্তাকে উদ্ধৃত করে রাশিয়ার রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা আরআইএ জানায়, “কর্মীরা স্বাভাবিক সময়ের মতোই তাদের কাজ অব্যাহত রেখেছে আর প্রকল্পটির তেজস্ক্রিয়তার মাত্রাও পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে আছে।”
“বুশেহের পরমাণু বিদ্যুৎ প্রকল্পের কোনো ক্ষতি হয়নি এবং এখান থেকে কোনো তেজস্ক্রিয় পদার্থ নির্গত হয়নি” বলে জাতিসংঘের পরমাণু শক্তি সংস্থাকে অবহিত করেছে ইরান।
ভূমিকম্পের পর অন্তত ১৬টি পরাঘাত অনুভূত হওয়ায় বেঁচে যাওয়া আতঙ্কিত বাসিন্দারা খোলা আকাশের নিচে রাত কাটায়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে দুর্গত অঞ্চলে পুলিশ ও সেনা মোতায়েন করা হয়েছে।