বৃহস্পতিবার, ১১ অগাস্ট ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ২৭ শ্রাবণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

কুলাউড়ার কাদিপুরে ৩ দিনব্যাপী মেলা ও বৈশাখী উৎসব সম্পন্ন



কুলাউড়া প্রতিনিধি : কুলাউড়া উপজেলার কাদিপুর ইউনিয়ন বাসীর আয়োজনে ৩দিন ব্যাপী বৈশাখী মেলা ১৫ এপ্রিল সোমবার সম্পন্ন হয়েছে। মহতোছিন আলী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে আয়োজিত বাঙ্গালীর প্রাণের উৎসব পহেলা বৈশাখ, নববর্ষ উদযাপন উপলক্ষে বিভিন্ন আয়োজন করা হয়। ১৩ এপ্রিল বিকাল ৩টায় মেলার উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে মেলার উদ্বোধন করেন কুলাউড়া উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক, কাদিপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান, শাহ্‌জালাল আইডিয়াল ইন্টারন্যাশনাল স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ ও সাপ্তাহিক কুলাউড়ার ডাক পত্রিকার সম্পাদক এ কে এম সফি আহমদ সলমান। উদ্বোধনী দিনে মেলা উদযাপন কমিটির যুগ্ম আহবায়ক ও মহতোছিন আলী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ফয়জুর রহমান ছুরুক এর সভাপতিত্বে ও তায়েফ মোঃ নিয়াজুল ইসলামের পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন মেলা উদযাপন কমিটির যুগ্ম আহবায়ক ও ছকাপন স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ আব্দুল খালিক, মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি আব্দুল খালিক, নবীন চন্দ্র মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ আমির হোসেন, মাহতাব ছায়েরা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মাহমুদুর রহমান কবির, মহতোছিন আলী উচ্চ বিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষক আব্দুল মুঈদ, ছকাপন স্কুল এন্ড কলেজের প্রভাষক সজল মলিক, কাদিপুর ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য মোঃ সফিক মিয়া, আজিজুল ইসলাম টিটু, মহতোছিন আলী উচ্চ বিদ্যালয়ের অভিভাবক সদস্য নিয়ামুল ইসলাম কমর। উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শেষে সন্ধ্যায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে বাউল গান পরিবেশন করে রানু সরকার ও তার দল। পরদিন ১৪এপ্রিল সকালে ১লা বৈশাখের র‌্যালির মাধ্যমে শুরু হওয়া নানা আয়োজনের মধ্যে ছিল নববর্ষের আলোচনা সভা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, কাবাডি প্রতিযোগিতা, পান্তা ইলিশ দিয়ে আপ্যায়ন। বিকেলে ১লা বৈশাখের আলোচনা সভায় মেলা উদযাপন কমিটির যুগ্ম আহবায়ক ছকাপন স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ আব্দুল খালিকের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন কুলাউড়া উপজেলা আওয়ামীলীগ এর যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, কাদিপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান, শাহ্‌জালাল আইডিয়াল ইন্টারন্যাশনাল স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ ও সাপ্তাহিক কুলাউড়ার ডাক পত্রিকার সম্পাদক এ কে এম সফি আহমদ সলমান। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন কুলাউড়া পৌরসভার কাউন্সিলর ইকবাল আহমদ শামীম, মহতোছিন আলী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ফয়জুর রহমান ছুরুক, কাদিপুর ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য সফিক মিয়া, আব্দুর রহিম মিঠু, কাজল দেবনাথ, দিপু ধর, ইউছুফ গণি কলেজের প্রভাষক মোতাহির আলী, কুলাউড়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষক ছমিউর রহমান। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন মহতোছিন আলী উচ্চ বিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষক আব্দুল মুঈদ, সৈয়দ ইরশাদ আজমল কিন্ডার গার্টেনের অধ্যক্ষ সৈয়দ জাবির হোসেন শিমুল, প্রধান শিক্ষিকা জুসিয়ারা খানম, হেনা বেগম, তাহমিনা আক্তার তুহিন, কুলাউড়া উপজেলা জাসদ এর সাংগঠনিক সম্পাদক জাকির হোসেন খান, সাংবাদিক তারেক হাসান, সিপিএ’র সভাপতি কামরুল হাসান বখস, মহতোছিন আলী উচ্চ বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সদস্য ইব্রাহীম লিলেছ, শহীদ আমির উদ্দিন স্মৃতি সংস্থার সভাপতি সালাম আহমদ বাপ্পী, রাশেদুল ইসলাম রুবেল, সমাজসেবক রবি মলিক প্রমুখ। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, মহতোছিন আলী উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক আতিকুর রহমান সোহেল, ছকাপন স্কুল এন্ড কলেজের সহকারী প্রধান শিক্ষক বশর মিয়া, ইউনিয়নের বিভিন্ন বিদ্যালয়ের শিক্ষক/শিক্ষিকা, ছাত্র/ছাত্রী, অভিভাবক সহ এলাকার সর্বস্তরের জনসাধারণ। সকালে বৈশাখী র‌্যালীতে মেলা প্রাঙ্গণ থেকে বের হয়ে র‌্যালিটি বৈশাখী সাজে বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে। র‌্যালী শেষে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা বৈশাখের গান পরিবেশন করে। এসময় কুলাউড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শামছুল ইসলাম ও রাফিকা বিনতে রউফ রাখি মেলা পরিদর্শন করেন। বৈশাখী আলোচনা সভা শেষে সন্ধ্যায় কুলাউড়া লাল সূর্য খেলাঘর আসর ও উদীচি শিল্পী গোষ্ঠী সঙ্গীত পরিবেশন করে। মেলার সমাপনী দিনে ১৫ এপ্রিল সন্ধ্যায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে অরুণী সাংস্কৃতিক সংসদ মৌলভীবাজারের শিল্পীবৃন্দ ও শান্ত গান পরিবেশন করে। রাতে র‌্যাফেল ড্র অনু্‌ষ্ঠানে বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করা হয়। ১ম পুরস্কার একটি ২১ইঞ্চি রঙ্গিন টেলিভিশন, ২য় পুরস্কার একটি বাইসাইকেল, ৩য় পুরস্কার ১টি টেবিল ফ্যান সহ মোট ১০টি আকর্ষণীয় পুরস্কার প্রদান করা হয়। এসময় মেলা উদযাপন কমিটির আহবায়ক এ কে এম সফি আহমদ সলমান তাঁর বক্তব্যে বলেন, ১লা বৈশাখ আমাদের সংস্কৃতির অন্যতম দিন। আমাদের সাংস্কৃতির ঐতিহ্য রক্ষায় আরও সচেতন হতে হবে। নববর্ষ এখন বাঙ্গালির প্রাণের উৎসবে পরিণত হয়েছে। আগামী দিনে প্রতিবছর এই মেলার পৃষ্ঠপোষকতা করে যাবো। মেলায় কুলাউড়া বিনোদন সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠনের সদস্যরা নৃত্য পরিবেশন করে।