মঙ্গলবার, ৬ ডিসেম্বর ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

মাহমুদুর রহমানের মুক্তির দাবীতে ফ্রান্সে বাংলাদেশ সাংবাদিক ইউনিয়নের আয়োজনে প্রতিবাদ সভা



Journalist Conference2

ফ্রান্স থেকে সংবাদদাতা : রোববার, ফ্রান্সের প্যারিসে আমার দেশ পত্রিকার সম্পাদক মাহমুদুর রহমানের মুক্তির দাবীতে এক প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়। বাংলাদেশ সাংবাদিক ইউনিয়ন ফ্রান্স এর আয়োজনে এই প্রতিবাদ সভায় মাহমুদুর রহমানের সাহসী সাংবাদিকতার জীবনের অবদান ও বর্তমানে তাঁর উপর নিষ্ঠুর নির্যাতনের নানা দিক তুলে ধরে নি:শর্ত মুক্তি দাবী করেন।
প্রতিবাদ সভায় বক্তারা, দেশের সংকটময় পরিস্থিতিতে মাহমুদুর রহমানের ভুমিকা তুলে ধরে বলেন, দেশে যখন জরুরী অবস্থা জারী হয়, মাহমুদুর রহমানই এক মাত্র সাংবাদিক যিনি এ সময়ে বিভিন্ন বিষয়ে প্রতিবাদ করেন। এ সময়ে তিনি শেখ হাসিনার মুক্তির ও দাবী করেছিলেন। অথচ সেই শেখ হাসিনাই আজ তাঁর উপর নির্যাতন চালিয়ে মেরে ফেলার পায়তারা করছে।
বক্তারা বর্তমানে পুলিশের বিতর্কিত কর্মকান্ডের সমালোচনা করে বলেন, জনগনের টাকায় কেনা গুলি দিয়ে সেই জনগনকেই নির্বিচারে হত্যা করছে। বাংলাদেশ আজ নানা মুখী চক্রান্তে আক্রান্ত।
আন্তর্জাতিক ফারাক্কা বাঁধ কমিটির আহবায়ক কাজী আব্দুল্লাহ আল মামুন তাঁর বক্তব্যে বলেন,”হাফেজ্জী হুজুরের ছেলে চিকিৎসা রত মাহমুদুর রহমানের সাথে দেখা করতে চাইলে, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রনালয়ের অনুমতি নেই বলে ফিরিয়ে দেয় পুলিশ।
মাহমুদুর রহমান প্রসঙ্গে খালেদা জিয়ার বর্তমান নীরবতা নিয়েও তিনি প্রশ্ন তোলেন। ব্যরিষ্টার রফিকুল হকের নীরব ভুমিকার ও সমালোচনা করেন। মাহমুদুর রহমান সাহেবকে জীবিত উদ্বার করতে এখনই পদক্ষেপ নেওয়ার আহবান জানান তাঁর বক্তব্যে।
ফ্রান্সের উদাহরন দিয়ে বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ ও রজনীতিবিদ ড: আব্দুল মালেক বলেন,, এদেশে কথা বলার, প্রতিবাদ করার অধিকার আছে। কোন সমাবেশে বিশৃংখলা সৃষ্টি না করা পর্যন্ত পুলিশকে কোন হস্তক্ষেপ না করার জন্য স্ব-রাষ্ট্র মন্ত্রনালয় থেকে অর্ডার করা হয়।কিন্তু আমাদের দেশে ? অন্যায়ের প্রতিবাদ করলেই নির্যাতন, মাহমুদুর রহমান তাঁর জলন্ত উদাহরন।
গনতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় একটা স্বচ্ছ সরকার প্রত্যাশা করে তিনি বলেন, দেশে আমরা আর কোন সংকট চাইনা।
সভাপতির বক্তব্যে বাংলাদেশ সাংবাদিক ইউনিয়ন, ফ্রান্সের সভাপতি আব্দুল মান্নান আযাদ বলেন, মাহমুদুর রহমান জেল জুলুমের কথা জেনেও তিনি সব সময় সাহসীকতার সাথে সত্য কথা বলতেন। মাহমুদুর রহমানকে জাতির বিবেক আখ্যায়িত করে তাঁর নি:শর্ত মুক্তি দাবী সহ তিনি, আমার দেশ পূনরায় খুলে দেওয়ার ও গনতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় একটি সুষ্ঠ নির্বাচনের দাবী জানান সরকারের প্রতি।”
ভারতকে বাংলাদেশের শত্রু সাব্যস্ত করে, ভারতীয় পন্য বর্জনের ও প্রবাস থেকেই আন্দোলন গড়ে তোলার আহবান জানানো হয় এই সভা থেকে।
অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য প্রদান করেন, অধ্যাপক শামসুল ইসলাম(শিক্ষাবিদ, সাংবাদিক) খোরশেদ আলম (নজরূল গবেষক), আবুল কালাম ফরাজী (রাজনৈতিক), সোহায়েল আহমেদ সোহেল (সাংবাদিক), এম এম হায়দার ( ম্যানেজিং ডাইরেক্টর, চেম্বার অব কমার্স, ফ্রান্স)
এছাড়াও সাংবাদিক সৈয়দ সাহিল সহ বিশিষ্ট সাংবাদিক, রাজনীতিবিদ, শিক্ষাবিদ,সমাজ চিন্তক ও বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।
প্রতিবাদ সভাটি উপস্থাপন করেন অধ্যাপক. খাঁন ইকবাল ( সা: সম্পাদক, সাংবাদিক ইউনিয়ন, ফ্রান্স, ও রাজনীতিবিদ)।