শনিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

বাতাসে লাশের গন্ধ…



11995_452317741513724_1889477229_n

ডেস্ক রিপোর্ট : সাভারে ধসে পড়া ভবনের নিচতলায় কয়েকশ জীবিত মানুষের সন্ধান পাওয়া গেছে। ধ্বংসস্তূপের মধ্যে আটকা পড়ে আছেন তারা। কিন্তু ভবনটি ধসে একতলার সঙ্গে মিশে যাওয়ায় ভেতরে ঢোকা কঠিন হয়ে পড়েছে। ভেতরে থাকা লাশে পচন ধরায় দুর্গন্ধের কারণে উদ্ধারকাজ চালাতে হিমশিম খাচ্ছেন উদ্ধারকর্মীরা। তবে বৃহস্পতিবার রাত থেকে এ পর্যন্ত ৬১ জন জীবিতকে উদ্ধার করা হয়েছে।
উদ্ধারকারীরা জানিয়েছেন, দ্বিতীয় তলায় আরো দুই শতাধিক জীবিত মানুষের সন্ধান পাওয়া গেছে। তাদের জন্য খাবার এবং পানি পাঠানো হয়েছে।
বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ধসে পড়া ভবনের ৩ তলায় ৯ নারীসহ ১২ জনের সন্ধান পাওয়ার পর তাদের উদ্ধারে অভিযান শুরু হয়। পরে দেয়ালে গর্ত খোঁড়ার পর নিচতলার মানুষগুলোর খোঁজ পাওয়া যায়।
এদিকে বৃহস্পতিবার রাত দেড়টা থেকে শুক্রবার দুপুর দেড়টা পর্যন্ত ধ্বংসস্তূপের ভেতর থেকে ৬১ জনকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে।
উদ্ধারকারীরা জানান, এখনো অনেক মানুষ ধ্বংসস্তূপের মধ্যে আটকা পড়ে আছেন। অনেকে বাঁচার জন্য আকুতি জানাচ্ছেন। কিন্তু ভবনটি ধসে একতলার সঙ্গে মিশে যাওয়ায় ভেতরে ঢোকা কঠিন হয়ে পড়েছে। ভেতরে থাকা লাশে পচন ধরেছে। দুর্গন্ধের কারণে উদ্ধারকাজ চালাতে হিমশিম খাচ্ছেন তারা। ভবনটির বিভিন্ন স্থানের ধ্বংসস্তূপে এখনো অনেক মৃতদেহ আটকে থাকতে দেখা গেছে।
প্রিয়জনের খোঁজে ধ্বংসস্তূপের আশপাশে স্বজনরা এখনো অপেক্ষা করছেন। স্বজনদের আর্তনাদ, আহাজারি আর কান্নায় সাভারের বাতাস ভারী হয়ে উঠেছে।
উল্লেখ্য, বুধবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে সাভার বাজার বাসস্ট্যান্ডের কাছে অবস্থিত ৮ তলা শপিং কমপ্লেঙ রানা প্লাজা ধসে এ পর্যন্ত ২৯২ জনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। ভবনটির ১ ও ২ তলায় মার্কেট, ৩ তলার সামনে অংশে ব্র্যাক ব্যাংকের একটি শাখা এবং ৩ থেকে ৮ তলা পর্যন্ত মোট ৫টি গার্মেন্টস কারখানা ছিল। এ কারখানাগুলোতে প্রায় ৫ হাজার শ্রমিক কাজ করতো। এর আগে মঙ্গলবার এই ভবনটিতে ফাটল দেখা দেয়।