শনিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

কমলগঞ্জে আদিবাসী ছাত্রীকে অপহরণ কালে অস্ত্রসহ দুই যুবক আটক



মৌলভীবাজার প্রতিনিধি : মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার সীমান্তবর্তী ইসলামপুর ইউনিয়নে মণিপুরী এক কলেজ ছাত্রীকে অপহরণের চেষ্টাকালে গ্রামবাসীর হাতে চাকুসহ খোকন (২৬) ও মুহিবুর (২৫) নামে ২ যুবককে। ঘটনাটি ঘটেছে গত ৩০ এপ্রিল মঙ্গলবার রাত ৮ টায় উপজেলার গোলরহাওর এলাকা। আদিবাসী ছাত্রীর পিতা মণিপুরী তাঁতী রঞ্জিত সিংহ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, তার কলেজপড়ুযা মেয়েকে মঙ্গলবার রাত ৮ টায় দলবল সহ অপহরন করতে আসে মাধবপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আশিক আলীর ছেলে খোকন ও আদমপুর ইউনিয়নের নইনারপার এলাকার বখাটে যুবক মুহিবুরের নেতৃত্বে ৬/৭ জনের একটি দল তার বাড়ীতেহানা দিয়ে তার মেয়েকে অপহরনের চেষ্টা চালায়। ঘটনাটি টের পেয়ে কলেজ ছাত্রী চিৎকার দিলে গ্রামবাসী দৌড়ে এসে ২ অপহরনকারীকে আটক করে গনধোলাই দেয়। ঘটনার খবর পেয়ে ইসলামপুর ইউপি চেয়ারাম্যান সোলেমান মিয়া আটককৃতদের দেখতে আসেন। নাম প্রকাশ না করার শর্তে প্রত্যড়্গদর্শী এক গ্রামবাসী বলেন, ইসলাপুর ইউপি চেয়ারম্যান আটককৃতদের পুলিশে সোপর্দ নাকরে প্রভাবশালী এক নেতার ফোন পেয়ে খোকনকে ছেড়ে দেন। উলেস্নখ্য যে, বিগত ১০ ফেব্রম্নয়ারী ২০১২ সনে সংগঠিত নন্দরানী চা বাগান হামলা ও হত্যা ঘটনায় দায়েরকৃত মামলার একজন পলাতক আসামী খোকন। এ ব্যাপারে জানতে চেয়ে কয়েক দফা ইসলামপুর ইউপি চেয়ারম্যানের মুঠোফোনে (০১৭১৫১৩৭২৪২) চেষ্টা করেও পাওয়া যায়নি। তবে কমলগঞ্জ থানার ওসি নিহার রঞ্জন নাথ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন ঘটনাস্থল থেকে তিনি ধৃত অবস্থায় মুহিবুর নামে এক বখাটেকে আটক করেছেন। খোকন নামে অন্য বখাটে পালিয়ে গেছে বলে তিনি শুনেছেন বলে জানান।