সোমবার, ১৫ অগাস্ট ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ৩১ শ্রাবণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

রাজধানীর ৬ প্রবেশপথে হেফাজতের শক্ত অবস্থান, ঢাকা কার্যত অবরুদ্ধ



33727_hhhghg

হেফাজতে ইসলামের ঢাকা অবরোধ কর্মসূচি শুরু হয়েছে। রাজধানীর প্রবেশমুখের নির্দিষ্ট ৬টি পয়েন্টে শক্ত অবস্থান নিয়েছেন হেফাজত নেতাকর্মীরা। রবিবার ভোর ৬ টা থেকেই ১৩ দফা দাবিতে হেফাজতের অবরোধে ঢাকার সঙ্গে সারা দেশের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। ঢাকার প্রবেশপথে সবগুলো সড়কে যান চলাচল বন্ধ রয়েছে। শুধু ঢাকার অভ্যন্তরীণ রুটে কিছু সংখ্যক যানবাহন চলাচল করছে।
ফজরের নামাজ পড়েই হেফাজতে ইসলামের কর্মীরা রাজধানীতে ঢোকার পথগুলোতে অবস্থান নিয়ে অবরোধ সৃষ্টি করেন। ফলে বন্ধ হয়ে যায় যান চলাচল। সকালে মুষলধারে বৃষ্টিও ঠেকাতে পারেনি হেফাজত কর্মীদের। রাজধানীর বিভিন্ন জায়গায় ব্যারিকেড দিয়ে রেখেছে পুলিশও।
কর্মসূচির অংশ হিসেবে রাজধানীর যাত্রাবাড়ী থেকে কাঁচপুর ও ডেমরা, পোস্তগোলার বুড়িগঙ্গা সেতু, পুরান ঢাকার বাবুবাজার সেতু, উত্তরা থেকে টঙ্গি-আব্দুল্লাহপুর পর্যন্ত এবং গাবতলী ও আমিনবাজার থেকে বলিয়ারপুর পর্যন্ত রাস্তায় অবস্থান নিয়েছেন কর্মীরা। এসব স্থানে যান চলাচল বন্ধ রয়েছে। তবে সংবাদ মাধ্যমের গাড়ি ও অ্যাম্বুলেন্সের চলাচলে কোনো বাধা দিচ্ছেন না তারা।
এদিকে যাত্রাবাড়ীর কাজলা এলাকায় ভোর থেকেই সড়ক অবরোধ সৃষ্টি করে হেফাজত কর্মীরা। ফলে ঢাকার সঙ্গে সিলেট ও চট্টগ্রামের যোগাযোগ বন্ধ হয়ে যায়। পুলিশও ব্যারিকেড দিয়েছে। এর একপাশে পুলিশ ও র‌্যাব সদস্যরা এবং অন্যপাশে হেফাজত কর্মীরা রয়েছেন। ট্রাকে মঞ্চ বানিয়ে সেখান থেকে মাইকে ১৩ দফা দাবি আদায়ে বিভিন্ন স্লোগান দিচ্ছেন হেফাজত কর্মীরা।
ডেমরা মোড়েও অবস্থান নিয়েছেন হেফাজত কর্মীরা। সেখানে দেয়াল থেকে সিনেমার পোস্টার ছিঁড়ে ফেলেছেন তারা।
ভোর থেকেই পোস্তগোলার বুড়ীগঙ্গা এক নম্বর সেতুতে জড়ো হন হেফাজত কর্মীরা। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে তাদের সংখ্যা কয়েক হাজারে পৌঁছায়। এ সেতু দিয়ে নারায়ণগঞ্জ ও মাওয়া ফেরিঘাট পর্যন্ত যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। পুলিশ ও র‌্যাব সদস্যরা সকাল থেকে ব্রিজের সামনে ব্যারিকেট দিয়ে রাখে। বেলা ১১টার দিকে পুলিশ স্বেচ্ছায় ব্যারিকেট সরিয়ে নিলে হেফাজতের কর্মীরা সেখানে অবস্থান নেয়। তারা সেখানে সমাবেশ করে।
বাবুবাজার-নয়াবাজার এলাকায় কয়েক হাজার হেফাজত কর্মী ফজরের নামাজ পড়েই অবস্থান নেন। ব্রিজের দুপাশে অবস্থান নিয়ে যান চলাচল বন্ধ করে দেন তারা। নয়াবাজারে পুলিশ রাস্তায় ব্যারিকেড দিয়ে রেখেছে। হেফাজত কর্মীরাও সেখানে অবরোধ সৃষ্টি করেন। পুলিশের সাঁজোয়া যান ও জল কামানবাহী গাড়ি টহল দিচ্ছে।
এদিকে সকাল থেকেই টঙ্গী ব্রিজ থেকে গাজীপুর পর্যন্ত কয়েক কিলোমিটার এলাকাজুড়ে হেফাজত কর্মীরা অবস্থান নিয়েছেন। ফলে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।
গাবতলী ব্রিজ থেকে আমিনবাজার, টেকনিক্যাল মোড় পর্যন্ত হেফাজত কর্মীরা রাস্তায় অবস্থান নিয়েছেন। ফলে ঢাকার সঙ্গে উত্তরাঞ্চলের যান চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে।
রাজধানীর প্রশেমুখ ও বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।