রবিবার, ২ অক্টোবর ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ১৭ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

‘সেপটিক শকে’ মৃত্যু : ইসলামী নিয়মেই দাফন মোহাম্মদ আলীর



29

নিউজ ডেস্ক: কিংবদন্তি মুষ্টিযোদ্ধা মোহাম্মদ আলীর পরিবারের সদস্যরা জানিয়েছেন, তার মৃত্যু সেপটিক শক বা এমন একটি কারণে হয়েছে যার ফলে শরীরের রক্তের চাপ বিপদজনক মাত্রায় নেমে আসে।

কেনটাকির লুইসভিলে শুক্রবার তার নিজের শহরে দাফন করা হবে বলে জানা গেছে। মুহাম্মাদ আলীর ইচ্ছানুযায়ী, ইসলামিক ঐতিহ্য মেনে দাফন করা হলেও, তাতে সব ধর্মমতের ছাপ থাকবে বলে পরিবারের সদস্যরা জানিয়েছেন।

তিনবারের বিশ্ব হেভিওয়েট চ্যাম্পিয়ন, ৭৪ বছর বয়সী মুহাম্মাদ আলী অনেকদিন ধরেই অসুস্থতায় ভুগছিলেন। শনিবার তিনি অ্যারিজোনা রাজ্যের ফিনিক্সে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

মুহাম্মাদ আলীর পরিবারের একজন সদস্য জানিয়েছেন, নিজেকে একজন বৈশ্বিক নাগরিক হিসাবে মনে করতেন মুহাম্মাদ আলী, তাই তিনি চাইতেন, তার শেষকৃত্যে সব ধর্মমতের মানুষ অংশ নেবে। মুহাম্মাদ আলীর চাওয়া অনুযায়ী, শেষকৃত্যটি মুসলিম ঐতিহ্য অনুযায়ী হলেও, তাতে সব ধর্মের ছাপ থাকবে।

মুহাম্মাদ আলীর স্ত্রীকে সমবেদনা জানিয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা বলেছেন, যেভাবে সারা বিশ্ব তাকে স্মরণ করছে, তাতেই তার বর্ণিল জীবন সম্পর্কে বোঝা যায়। মুহাম্মাদ আলীর প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়েছেন সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট বিল ক্লিনটনও।

মুষ্টিযোদ্ধার ২১ বছরের ক্যারিয়ারে তিনি মোট ৬১টি লড়াইয়ে অংশ নিয়েছেন আর ৫৬টিতে জয় পেয়েছেন। তিনি তিনবার হেভিওয়েট আর একবার লাইটওয়েট চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন।

কিভাবে মানুষ তাকে মনে রাখবে, এ প্রশ্নের জবাবে মুহাম্মাদ আলী বলেছিলেন, একজন মানুষ হিসাবেই তাকে সবাই মনে রাখবে, যে তার আত্মাকে বিক্রি করেনি। তবে এটা যদি বেশি মনে হয়, তাহলে বরং একজন ভালো মুষ্টিযোদ্ধা হিসাবেই সবাই তাকে মনে রাখুক।

তার জন্ম হয়েছিল ১৯৪২ সালের ১৭ই জানুয়ারি, ক্যাসিয়াস মার্সেলাস ক্লে হিসেবে কেনটাকি রাজ্যের লুইভিল শহরে। ক্যসিয়াস ক্লে ১৯৬৪ সালে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করে নাম বদলে রাখেন মুহাম্মাদ আলী। তিনি প্রথম সবার নজর কাড়েন ১৯৬০ সালে রোম অলিম্পিকসে।