বৃহস্পতিবার, ২১ এপ্রিল ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ৮ বৈশাখ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

হবিগঞ্জে প্রকাশ্যে দিবালোকে স্ত্রীকে ছুরিকাঘাত,স্বামীসহ আটক ৩



14141929_1813487552198581_6247286569401545756_n

হবিগঞ্জ সংবাদদাতা::ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের শায়েস্তাগঞ্জ নতুন ব্রীজ এলাকায় প্রকাশ্যে ছুরিকাঘাতে স্ত্রীকে হত্যা চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে স্বামী সাহিদ মিয়ার বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় পুলিশ স্বামী সাহিদ মিয়া, তার বোন সামছুন্নাহার ও জহুরা খাতুন আটক করেছে।
মঙ্গলবার দুপুর আড়াইটার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ সুত্রে জানা যায়, প্রায় চার বছর আগে চুনারুঘাট উপজেলার আলীনগর গ্রামের ইউনুস মিয়ার কন্যা সোমা আক্তারকে (২০) বিয়ে দেওয়া হয় একই উপজেলার দুধপাতিল গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা রমিজ উল্লার পুত্র সাহিদ মিয়ার কাছে। এ দম্পতির একটি কন্যা সন্তান রয়েছে।

সম্প্রতি সাহিদ মাদকাসক্ত হয়ে পড়ে। এ কারণে নেশার টাকার জন্য সাহিদ সোমার ওপর প্রায়ই নির্যাতন চালায়। চার মাস আগে সোমা বাধ্য হয়ে সাহিদকে ছেড়ে তার পিতার বাসায় চলে যায়। ৩-৪ দিন আগে সাহিদের মা অসুস্থ হলে তাকে হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এখানে তার অবস্থার অবনতি হলে তাকে ঢাকায় রেফার্ড করা হয়।

মঙ্গলবার দুপুরে তাকে ঢাকায় নিয়ে যাবার পথে নতুন ব্রীজ এলাকায় সাহিদের মাকে দেখতে আসে সোমা ও তার মা। শ্বাশুড়িকে দেখে পিত্রালয়ে ফেরার পথে স্বামী সাহিদের সঙ্গে সোমার দেখা হলে সে সোমাকে তার সঙ্গে নিজের বাড়িতে যেতে বলে। এ নিয়ে স্বামী-স্ত্রী দুজনের মাঝে বাকবিতণ্ডা হয়। এক পর্যায়ে সাহিদ ক্ষিপ্ত হয়ে নতুন ব্রীজ গোল চত্তর এলাকায় সোমাকে ছুরিকাঘাতে করে। সে সময় সোমার চিৎকারে স্থানীয় লোকজন এগিয়ে এলে সাহিদ পালিয়ে যায়। গুরুতর আহত অবস্থায় সোমাকে উদ্ধার করে হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

বিষয়টি প্রশাসনের নজরে এলে শায়েস্তাগঞ্জ হাইওয়ে থানা পুলিশ স্থানীয় লোকজনের সহায়তায় স্বামী সাহিদ মিয়া, তার বোন সামছুন্নাহার ও জহুরা বেগমকে আটক করে চুনারুঘাট থানায় সোপর্দ করে। এ ঘটনায় পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ আহত সোমাকে দেখতে হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে যান।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত