শনিবার, ১৩ অগাস্ট ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ২৯ শ্রাবণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

বিনা কারণে পুলিশ শতাধিক নেতা-কর্মীকে গ্রেফতার করেছে: নাসের রহমান



স্টাফ রিপোর্টার
নাটক সাজিয়ে মিথ্যা মামলায় দিয়ে পুলিশি হয়রানীর অভিযোগ এনেছেন মৌলভীবাজার-৩ (সদর-রাজনগর) আসনের জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট প্রাথী নাসের রহমান।
সোমবার সকালে মৌলভীবাজার প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এই অভিযোগ করেন। এসময় তিনি বলেন- বিনা কারনে পুলিশের গ্রেফতারি অভিযান ও হয়রানিমূলক কর্মকান্ড বিষয়ে জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা বরাবর অনেক অভিযোগ পত্র দাখিল করি। কিন্তু অত্যন্ত পরিতাপের বিষয় এ বিষয়ে রিটার্নিং কর্মকর্তা কোন নিবারণমূলক পদক্ষেপ তো নেনই নাই। বরং পুলিশি হয়রানীর মাত্রা উদ্বেগজনক মাত্রায় পৌছেছে। বিনা কারণে পুলিশ ১০ দিনে শতাধিক নেতা-কর্মীকে গ্রেফতার করেছে। পুরানো মোটর সাইকেল, টমটম ভেঙ্গে মিথ্যা মামলায় জড়াচ্ছে নেতা-কর্মীদের।
এই সময় একটি সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য সবার সহযোগিতার আহবান জানিয়ে তিনি নাম উল্ল্যেখ করে বলেন, মৌলভীবাজার মডেল থানার উপ-পরিদর্শক তাপস, অলি, সাব্বির মিয়া নামে তিন দারোগা বেশি হয়রানী করছে। সুষ্ঠু নির্বাচনের লক্ষ্যে তাদের বিরুদ্ধে তিনি লিখিত অভিযোগ রির্টানিং কর্মকর্তার দাখিল করবেন।
নাসের রহমান লিখিত অভিযোগে আরোও বলেন, পুলিশ ২৩ ডিসেম্বর রাতে বিএনপি সমর্থিত সাবেক পৌর কাউন্সিলর অলিউর রহমানের বাসায় অভিযান চালিয়ে বাসার আসবাবপত্র তছনছ করেছে। অনুরুপভাবে কাউন্সিলর স্বাগত কিশোর দাশ চৌধুরী, কাউন্সিলর বায়েস আহমদের বাসায় ডিবি পুলিশ হানা দিয়েছে। তার অভিযোগ এরুপ বেআইনী ও বিনা কারণে গ্রেফতারী অভিযান জনমনে আতংক সৃষ্টি করছে এবং যা নুন্যতম সুষ্ঠু নির্বাচনের পরিবেশ বিনষ্ট করছে। নির্বাচনী এলাকার হাজার হাজার নেতাকর্মী গত দুই সপ্তাহ ধরে বাসা-বাড়িতে থাকতে পারছেন না পুলিশি হয়রানীর কারণে।
সংবাদ সম্মেলনে নাসের রহমান ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য সাবেক এমপি খালেদা রব্বানী, জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি সাবেক পৌর মেয়র ফয়জুল করিম ময়ূন, এম এ মুকিত, জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান, যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার আক্তার চৌধুরী শিউলি, মোয়াজ্জেম হোসেন মাতুক, হেলু মিয়া, মতিন বক্স প্রমুখ।