বৃহস্পতিবার, ১১ অগাস্ট ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ২৭ শ্রাবণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

মৌলভীবাজারে গাড়ির স্ট্যান্ডে ইভটিজিং, ফুঁসে উঠছেন অভিভাবক ও সচেতন মহল
ফলোআপ: মানববন্ধন ও প্রধানমন্ত্রী বরাবরে স্মারকলিপি

ফলোআপ: মানববন্ধন ও প্রধানমন্ত্রী বরাবরে স্মারকলিপি



ডিএমবি ডেস্ক:: 

নিরাপদ শৈশব রক্তমাখা আজ। একজন পুরুষ পারে আগামী কালের সম্ভাব্য ইভটিজিং বা ধর্ষণ ঠেকাতে। ধর্ষণ ও ইভটিজিংকে না বলুন। এমন নানা প্রতিবাদী স্লোগান সম্বলিত প্লেকার্ড নিয়ে বৃষ্টি উপেক্ষা করে মানবন্ধনে অংশ নেন মৌলভীবাজারের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী, শিক্ষক,অভিভাবক ও সামাজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

গত রবিবার দুপুরে মৌলভীবাজার প্রেসক্লাব প্রাঙ্গনে শেখ বোরহান উদ্দিন (রহঃ) ইসলামী সোসাইটি (বিআইএস) এর উদ্যোগে মৌলভীবাজার বিভিন্ন গাড়ী স্ট্যান্ড ঘিরে ইভটিজিং আতঙ্ক, দেশ ব্যাপী ধর্ষণ, যৌন হরানী ও প্রকাশে কুপিয়ে হত্যার প্রতিবাদে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। ঘন্টাব্যাপি চলা এই মানববন্ধনে সংগঠন এর প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারম্যান এম মুহিবুর রহমান মুহিব এর সভাপতিত্বে ও মহাসচিব মিজানুর রহমান রাসেল এর সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন, সম্মিলিত সামাজিক উন্নয়ন পরিষদ মৌলভীবাজার এর সভাপতি খালেদ চৌধুরী, জেলা যৌন হয়রানী নির্মূল করণ নেটওয়ার্ক এর সভাপতি ও হাফিজা খাতুন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রাশেদা বেগম।

বক্তব্য রাখেন- কেএম আকলু, শেখ মোঃ কামরুল হাসান, ফয়ছল মনসুর নাফিজ ইমতিয়াজ চৌধুরী, আহমদ আলী সায়েম, মারুফ রহমান, রাফসান রাজা জাওয়াদ, তামিমুল ইসলাম, মোঃ সোহান হোসাইন হেলাল, মোঃ সাইফুর রহমান চৌধুরী, মোঃ নাজমুল হোসাইন, সাদেকুর রহমান রাসেল, বোরহান উদ্দিন রোপক,ল আশরাফুল খাঁন রুহেল, দুলাল হোসেন জুমান, সিরাজুল হাসান, এম জুনেদ আহমদ, ফয়েজ আহমদ, সোহেল আহমদ, সাইদুল ইসলাম রিমন, শাহ উমর আলী, গোবিন্দ দেব মিত্র, শাহরিয়ার খাঁন সাকিব, আরেফিন মামুন, আব্দাল হোসেন প্রমুখ।

বক্তারা বলেন- গেল ক’য়েক মাস থেকে আমাদের জেলা শহরসহ দেশ জুড়ে নৈতিকমূল্যবোধ ও সামাজিক অবক্ষয়ের বিষয় দৃষ্টিগোচর হচ্ছে। ইভটিজিং, ধর্ষণ, যৌন হয়রানী,ধর্ষণের পর হত্যা কিংবা প্রেম ঘটিত বিষয় নিয়ে প্রকাশ্য দিবালোকে কুপিয়ে হত্যার মত জঘন্য ও ন্যাক্কার জনক ঘটনাও ঘটছে। বয়ে চলা এঘটনা গুলো জনমনে আতঙ্ক সৃষ্টি হচ্ছে।

গেল কয়েক মাস থেকে আমাদের জেলা শহরের চাদঁনীঘাটসহ বিভিন্ন গাড়ি স্ট্যান্ডের চালক ও তাদের সহযোগীরা নানা অঙ্গ ভঙ্গি আর অশ্লীল কথাবার্তায় স্কুল কলেজের মেয়েদের উত্ত্যক্ত করছেন। তাই মেয়েরা এই স্থান পাড়ি দেন চরম আতংকে। স্কুল কলেজের ছাত্রীরা প্রতিদিনই ওখানে যৌন হয়রানীর শিকার হচ্ছেন। তাদের আসা যাওয়ার সময় চাঁদনীঘাট গাড়ি স্ট্যান্ডসহ পৌরসভা ও সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠের পূর্বপাশের গাড়ি স্ট্যান্ড, শিল্পকলা একাডেমির সামনের গাড়ি স্ট্যান্ড, সমশেরনগর রোডের সিএনজি গাড়ি স্ট্যান্ড, বেরিপাড় পয়েন্ট,কুসুমভাগ চৌমহনার পশ্চিম পাশের গাড়ি স্ট্যান্ডের গাড়ি চালক ও তাদের সহযোগীদের এমন অশ্লিলতা,বখাটেপনা ও ইভটিজিংয়ের কারনে চরম মানুসিক যন্ত্রণার শিকার হচ্ছেন তারা। স্কুল কলেজের ক্লাসের সময় ক্লাস ফাঁকি দিয়ে প্রেম প্রতারণার ফাঁদেও পড়ছেন। তাছাড়া দেশ জুড়ে ধর্ষণ,যৌন হয়রানী,ধর্ষণের পর হত্যা ও প্রেম ঘটিত বিষয় নিয়ে প্রকাশ্য দিবালোকে কুপিয়ে হত্যার বিষয়টি দেশের সুনাগরিক হিসেবে আমাদেরকেও ভাবিয়ে তুলছে। এমতাবস্থায় অভিভাবকরা তাদের ছেলে মেয়ে নিয়ে চরম দুশ্চিন্তাগ্রস্থ।

তাই এ সমস্ত রাষ্ট্রীয় আইনশৃঙ্খলা বিরোধী,সমাজ ও সংস্কৃতি বিরোধী অপকর্ম রুখতে শক্ত হস্তে পদক্ষেপ নেওয়া প্রয়োজন। তারা বলেন আমাদের দৃঢ় বিশ্বাস জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলার স্বপ্ন বাস্তবায়নে আমাদের আগামীর প্রজন্মকে যোগ্য ও দক্ষ করে গড়ে তুলতে এসমস্ত অপকর্ম বন্ধ করতে প্রধানমন্ত্রী অবশ্যই পদক্ষেপ নিবেন। মানবন্ধন শেষে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি জেলা প্রশাসক মৌলভীবাজার এর মাধ্যমে প্রধান করা হয়। ঝড়, বৃষ্টি উপেক্ষা করে শিক্ষার্থী, শিক্ষক, সুশীল সমাজের প্রতিনিধি ও বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন এর নেতৃবৃন্দ মানববন্ধন ও স্মারকলিপি প্রদানে অংশগ্রহন করেন।