শনিবার, ২৩ এপ্রিল ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ১০ বৈশাখ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
Sex Cams

বঙ্গবীর ওসমানী মেমোরিয়েল ফাউণ্ডেশন ইউকের বিজয়ের সুবর্ণ জয়ন্তি পালন ও বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সম্বর্ধনা প্রদান :।




—————————————————————-
অবিলম্বে হাই কমিশনের মাধ্যমে জাতীয় পরিচয় পত্র প্রদানের জোর দাবী
—————————————————————-
মুক্তিযুদ্ধের সর্বাধিনায়ক বঙ্গবীর জেনারেল এম এ জি ওসমানী মেমোরিয়েল ফাউণ্ডেশন ইউকের উদ্যোগে গত ২০ ডিসেম্বর সোমবার পূর্ব লণ্ডনের ব্রিকলেনের একটি রেস্টুরেন্টে এক আলোচনা সভা ও ৭ জন বীর মুক্তিযোদ্ধাকে সম্বর্ধনা প্রদান করা হয় ।
সংগঠনের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব কবির উদ্দিনের সভাপতিত্বে এবং সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান কে এম আবুতাহের চৌধুরী ও সাধারন সম্পাদক মোহাম্মদ গোলাম রাব্বানীর যৌথ পরিচালনায় অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন -বাংলা পোষ্টের চেয়ারম্যান শেখ মফিজুর রহমান ,গ্রেটার সিলেট কাউন্সিল ইউকের চেয়ারপারসন ব্যারিষ্টার আতাউর রহমান ,সাংবাদিক রহমত আলী ,বীর মুক্তিযাদ্ধা আবুল কাশেম খান ,বীর মুক্তিযাদ্ধা এম এ মান্নান ,বীর মুক্তিযাদ্ধা আব্দুর রহিম ,বীর মুক্তিযোদ্ধা আমীর খান ,বীর মুক্তিযাদ্ধা পীরজাদা হোসেইন আহমদ ,বীর মুক্তিযাদ্ধা মোহাম্মদ মোস্তফা ,যুদ্ধাহত মুক্তিযাদ্ধা এম রহমান ,কাউন্সিলার ফারুক আজিজ ,ব্যারিষ্টার মাসুদ চৌধুরী ,ডা: গিয়াস উদ্দিন আহমদ ,হাজী কলা মিয়া ,অধ্যক্ষ ফখর উদ্দিন চৌধুরী ,সাংবাদিক ছমির উদ্দিন ,সাংবাদিক খান জামাল নুরুল ইসলাম ,সাংবাদিক আফসর উদ্দিন , কমিউনিটি সংগঠক হাজী ফারুক মিয়া ,স্কুল গভর্নর মিসেস ঝরনা চৌধুরী ,অধ্যাপক আব্দুল হাই,সমাজসেবী আবুল মিয়া প্রমুখ ।অনুষ্ঠানে কবিতা আবৃত্তি করেন -কবি শিহাবুজ্জামান কামাল ও সৈয়দা নাসিম কুইন ।
সভায় বিজয়ের ৫০ বছর পূর্তিতে বাংলাদেশের স্থপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ,মুক্তিযুদ্ধের সর্বাধিনায়ক বঙ্গবীর জেনারেল মুহম্মদ আতাউল গনি ওসমানী ,মুক্তিযুদ্ধের সেকেণ্ড-ইন-কমাণ্ড জেনারেল রব , স্বপ্নদ্রষ্টা মাওলানা আব্দুল হামিদ খান ভাসানী ,কালুরঘাট বেতার কেন্দ্র থেকে বঙ্গবন্ধুর পক্ষ থেকে স্বাধীনতার ঘোষণা প্রদানকারী তৎকালীন মেজর জিয়াউর রহমান বীরত্তোম ,সকল সেক্টর কমাণ্ডার সহ সকল বীর মুক্তিযোদ্ধাদের শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করা হয় ।সভায় ১৯৭১ সালে ডাকসু ও ছাত্র সংগ্রাম পরিষদের নেতা আ স ম আব্দুর রব ,নুরে আলম সিদ্দীকি ,শাহজাহান সিরাজ ,আব্দুল কুদ্দুস মাখন সহ সকল বীর মুক্তিযাদ্ধাদের প্রতি ধন্যবাদ ,শ্রদ্ধা ও সম্মান প্রদর্শন করা হয় ।সভায় বৃটেনের মুক্তিযুদ্ধের সংগঠকদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করা হয় ।
সভায় বক্তারা অভিযোগ করে বলেন যে ,১৯৭১ সালে বৃটেনের প্রবাসী বাঙালীরা বিশ্ব জনমত গঠণ ,ফাণ্ড সংগ্রহ ,মুক্তিযোদ্ধাদের রাইফেল কিনে দেওয়া ,ত্রাণ সরবরাহ থেকে শুরু করে সব ধরনের সাহায্য করেছেন ।দীর্ঘ ৫০ বছরেও বিলেতের মুক্তিযুদ্ধের সংগঠকদের বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে সম্মাননা দেওয়া হয়নি ।
সভায় বক্তারা বলেন যে -বাংলাদেশে বর্তমানে জাতীয় পরিচয় পত্র না থাকলে জায়গা বেচা কেনা ,জায়গার নামজারী ,মোবাইলের সিম কেনা থেকে শুরু করে কোন কাজ করা যায় না ।আগে বিদেশী পাসপোর্ট দিয়ে কাজ করতে পারলেও এখন সম্ভব হচ্ছে না ।তাই বাংলাদেশ হাই কমিশনের মাধ্যমে প্রবাসী বাংলাদেশীদের জাতীয় পরিচয় পত্র প্রদানের জোর দাবী জানানো হয় ।
সভায় মুক্তিযুদ্ধের সর্বাধিনায়ক জেনারেল এম এ জি ওসমানীকে যথাযথ মূল্যায়নের জোর দাবী জানানো হয় ।
সভায় আগত ৭ জন মুক্তিযোদ্ধাকে লাল গোলাপ শুভেচ্ছা ও উপহার প্রদান করা হয় ।
সভায় স্বাধীনতা আন্দোলনের সকল শহীদানদের রুহের মাগফিরাত কামনা করে দোয়া করেন মাওলানা আব্দুল কুদ্দুছ।
অনুষ্ঠানে আগত সবাইকে প্রীকিভোজে আপ্যায়িত করা হয় ।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত