সোমবার, ২৮ নভেম্বর ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত‍্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে ২৬ শে টিভিতে ভার্চ্যুয়াল আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত।




বদরুল মনসুর,
ঐতিহাসিক ১০ ই জানুয়ারী জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বদেশ প্রত‍্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে ২৬ শে টিভির উদ্যোগে এক ভ্যাচুয়াল আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
২৬ শে টিভির চেয়ারম্যান ও রাজনীতির মঞ্চের উপস্থাপক সাবেক ছাত্রনেতা আব্দুল আহাদ চৌধুরীর উপস্থাপনায় আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন যুক্তরাজ‌্য আওয়ামী লীগ সভাপতি বিশিষ্ট রাজনিতিবিদ,ও মুক্তিযোদ্ধা,সুলতান মাহমুদ শরীফ, বিশেষ অতিথি হিসাবে বীর মুক্তিযোদ্ধা, সাবেক ছাত্র নেতা যুক্তরাজ‍্য আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা বীর মুক্তিযোদ্ধা, সাবেক ছাত্রনেতা দেওয়ান গৌস সুলতান, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতাকালীন সাধারণ সম্পাদক বিশিষ্ট লেখক এম এ সালাম, যুক্তরাজ‍্য আওয়ামী লীগের মানবাধিকার বিষয়ক সম্পাদক সাবেক যুবনেতা এম এ সারব আলী, ইউকে বিডি টিভির চেয়ারম্যান ও ওয়েলস আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ সভাপতি,সাবেক ছাত্রনেতা মোহাম্মদ মোহাম্মদ মকিস মনসুর, ৭১ এর ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির ইউকের সভাপতি সৈয়দ এনামুল ইসলাম, লন্ডন বাংলা প্রেসক্লাবের ট্রেজারার বিশিষ্ট সাংবাদিক আ স ম সালেহ মাসুম,
মিলটন কিং আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোজাম্মেল হক চৌধুরী টিপু, ও নব প্রজন্মের অহংকার, প্রগতিশীল সাংবাদিক, কমিটিনেত্রী অজন্তা দেব।
আলোচকবৃন্দ বলেন আজ স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস। ১০ জানুয়ারি একদিনে আসেনি দীর্ঘ নয় মাস কঠিন সংগ্রাম ও মুক্তিযুদ্ধের মধ্য দিয়ে আসে। বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে আমরা যুদ্ধ করেছি। জাতির জনকের ভাষণ ছিলো আমাদের মূলমন্ত্র। এই ভাষণ আমাদেরকে উজ্জীবিত করতো। এখনো এই ভাষণ সবাইকে অনুপ্রাণিত করে। দুর্ভাগ্য হলো বঙ্গবন্ধুর দেশে ফেরার সাড়ে তিনবছরের মাথায় তাঁকে হারাই। অপশক্তিরা ভেবেছিল আমরা আর উঠে দাঁড়াতে পারবো না। কিন্তু মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা দেশে প্রত্যাবর্তন করে দেশের হাল ধরেছিলেন। আজ বাংলাদেশ বিশ্বে উন্নয়নের রোল মডেল। জননেত্রীর সুযোগ্য নেতৃত্বে একজন মানুষও না খেয়ে মারা যায় নি। দেশ আজ এগিয়ে যাচ্ছে। তবে অপশক্তিরা এখনো তৎপর। তাদের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে। আমাদেরকে সংঘবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে। আওয়ামী লীগ ঐক্যবদ্ধ হলে কোনো অপশক্তিই কিছু করতে পারবে না। তাছাড়া আওয়ামী লীগের ইতিহাস নতুন প্রজন্মকে জানাতে হবে বলে উল্লেখ করে বক্তারা বলেন, ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা’র ২০৪১ সালে যে সমৃদ্ধ দেশের স্বপ্ন দেখেছেন তা অবশ্যই বাস্তবায়ন করতে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ ভাবে কাজ করার আহবান জানিয়েছেন।