বুধবার, ১৭ অগাস্ট ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ২ ভাদ্র ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

লন্ডন বাংলা প্রেসক্লাবের নির্বাচন সম্পন্ন, ফলাফল ঘোষনা,,।



,,
লন্ডন বাংলা প্রেসক্লাবের ফলাফল ২০২২ কিছুক্ষণ আগে ঘোষণা করা হয়েছে।
উক্ত নির্বাচনে দু’টি এল্যায়ন্সে মোট ৩০ জন ও স্বতন্ত্র হিসেবে ৩ জন সহ মোট ৩৩ জন প্রার্থী ১৫টি পদের জন্য প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন।
বরাবরের মত এবারও দুটি এল্যায়েন্সে নির্বাচন হয় এবং
নির্বাচন ফলাফলে,
মোহাম্মদ এমদাদুল হক চৌধুরী প্রেসিডেন্ট, তাইসির মাহমুদ সেক্রেটারি (একই এল্যায়েন্স থেকে) এবং সালেহ আহমদ ট্রেজারার (অপর পক্ষথেকে) নির্বাচিত হন।
লণ্ডনের ইম্প্রেশন হলে সকাল থেকে গভীর রাত অবদি চলতে থাকে নির্বাচনের বিভিন্ন প্রয়োজনীয় কাজকর্ম। দুপুর ২:৩০ মিনিট হতে সন্ধ্যা ৬:৩০ মিনিট পর্যন্ত চলতে থাকে ভোট কার্যক্রম।

বিজিএম, দুপুরের লাঞ্চ,সঙ্গীতানুষ্ঠান, রাতের ডিনার ও গণ্যমান্য ব্যক্তিদের উপস্থিতিতে ক্রেস্ট প্রদান এবং আলোচনা।
সভায় উপস্থিত ছিলেন, যুক্তরাজ্যের বাংলাদেশ হাই কমিশনের প্রধান সাইয়িদা মুনা তাসনিম।ব্রিটিশ পার্লামেন্ট সদস্য আফসানা বেগম। এছাড়াও বাঙালি কমিউনিটির গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে অবদানের স্বীকৃতি স্বরূপ মুক্তি যোদ্ধাদের আজীবন সম্মাননা এবং ক্রেস্ট প্রদান করা হয়।
নিম্নে লন্ডন বাংলা প্রেস ক্লাবের কার্যকরি পরিষদ নির্বাচনে সকল পদপ্রার্থীদের প্রাপ্ত ভোটের সংখ্যা।

প্রেসিডেন্ট;
মোহাম্মদ এমদাদুল হক চৌধুরী —– ১৮২ ভোটে নির্বাচিত হয়েছেন।অপর পক্ষে
মোহাম্মাদ আব্দুস সাত্তার —–১২৮ ভোট পেয়েছেন।

সেক্রেটারি;
তাইসির মাহমুদ—-১৭৬ ভোটে নির্বাচিত হয়েছেন।
অপর পক্ষে, মুসলেহ উদদ্দীন আহমদ —– ১৩১ ভোট পেয়েছেন

ট্রেজারার;
সালেহ আহমেদ —–১৭৮ ভোটে নির্বাচিত হয়েছেন। অপর পক্ষে, আব্দুল কাদির চৌধুরী মুরাদ—–১২০ ভোট পেয়েছেন।

সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট;
তারেক চৌধুরী—- ১৯৮ ভোটে নির্বাচিত হয়েছেন। অপর পক্ষে, মোজাম্মেল হোসেন কামাল—-১০৮ ভোট পেয়েছেন।

ভাইস প্রেসিডেন্ট;
রহমত আলী ——১৭১ ভোটে নির্বাচিত হয়েছেন। অপর পক্ষে, আনিসুর রহমান আনিছ —–১২৮ ভোট পেয়েছেন।

এসিসট্যান্ট সেক্রেটারি;
সাইম চৌধুরী —— ১৫৫ ভোটে নির্বাচিত হয়েছেন। অপর পক্ষে, ইব্রাহিম খলিল—– ১৫৪ ভোট পেয়েছেন।

এসিসটেন্ট ট্রেজারার;
মোঃ আব্দুল কাইয়ূম —- ১২৫ ভোটে নির্বাচিত হয়েছেন। অপর পক্ষে,
মরিয়ম পলি রহমান —-৮৫ ভোট এবং
আমিনুল ইসলাম তানিম (স্বতন্ত্র) ৯৬ ভোট পেয়েছেন।

অর্গানাইজিং এন্ড ট্রেইনিং সেক্রেটারি;
ইমরান আহমদ —— ১৬১ ভোটে নির্বাচিত হয়েছেন। অপর পক্ষে, রূপি আমিন ——১৪৪ ভোট পেয়েছেন।

মিডিয়া এন্ড আইটি সেক্রেটারি;
আব্দুল কাইয়ূম ——– ১৪৯
আব্দুল হান্নান ——১৭৫ ভোটে নির্বাচিত হয়েছেন। অপর পক্ষে,আব্দুল কাইয়ূম —–১৪৯ ভোট পেয়েছেন।

ইভেন্ট এন্ড ফেসলিটিজ;
মোহাম্মদ রেজাউল করিম মৃধা ——-১৭৪ ভোটে নির্বাচিত হয়েছেন। অপর পক্ষে, জুয়েল রাজ—১৩১
ভোট পেয়েছেন।

এক্সিকিউটিভ মেম্বার(সাত্তার-মুসলেহ-সালেহ)
আহাদ চৌধুরী বাবু —–২১৬ নির্বাচিত হয়েছেন।
সারওয়ার হোসেন—-১৪৮ নির্বাচিত হয়েছেন।
সেবুল চৌধুরী—-৮৯
কলনদর তালুকদার—–৫২
হারুনুর রশীদ—–৭৮

এক্সিকিউটিভ মেম্বার (এমাদ-তাইসির-মুরাদ)
শাহনাজ সুলতানা—–১৪৭ নির্বাচিত হয়েছেন।
নাজমুল হোসেন—–১৭৩ নির্বাচিত হয়েছেন।
আনোয়ার শাহজাহান—-১৫৪ নির্বাচিত হয়েছেন।
সাইদুর রহমান সুহেল—-১৩১
আজিজুল হক কয়েস—–১৩২
নোমান ভক্ত (স্বতন্ত্র)—–২৭
জি,আর সুহেল( স্বতন্ত্র)—-৯৮
যাঁরা বিজয়ী হয়েছেন তাঁরা হচ্ছেন : প্রেসিডেন্ট -এমদাদুল হক চৌধুরী (প্রাপ্ত ভোট ১৮২), সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট-তারেক চৌধুরী (১৯৮ ভোট), ভাইস প্রেসিডেন্ট -রহমত আলী(১৭১ ভোট), জেনারেল সেক্রেটারি-তাইসির মাহমুদ (১৭৬ ভোট),এসিটেন্ট জেনারেল সেক্রেটারি-সাঈম চৌধুরী (১৫৫ ভোট), ট্রেজারার-সালেহ আহমদ (১৭৮ ভোট), এসিসটেন্ট ট্রেজারার-মোহাম্মদ আব্দুল কাইয়ুম (১২৫ ভোট), অরগেনাইজিং সেক্রেটারি -ইমরান আহমদ (১৬১ ভোট), মিডিয়া এন্ড আইটি সেক্রেটারি -মোং আবদুল হান্নান (১৭৫ ভোট), ইভেন্ট এন্ড ফ্যাসিলিটিস সেক্রেটারি -মো: রেজাউল করিম মৃধা (১৭৪ ভোট)।

নির্বাহী সদস্য পদে যারা বিজয়ী হয়েছেন তাঁরা হলেন : আহাদ চৌধুরী বাবু (প্রাপ্ত ভোট ২১৬), নাজমুল হোসেন ( ১৭৩ ভোট), আনোয়ার শাহাজাহান (১৫৪ ভোট), শাহনাজ সুলতানা (১৪৭ ভোট),মো: সারওয়ার হোসেন ( ১৪৮ ভোট)।