শুক্রবার, ২ ডিসেম্বর ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

যুক্তরাজ্য প্রবাসী সাত ব্যবসায়ীকে গ্রেফতারে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন প্রাউড টু বি সিলেটি ওয়েলফেয়ার ট্রাষ্ট ইউকে নেতৃবৃন্দ, অবিলম্বে প্রবাসীদের মুক্তি সহ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্তের দাবি,



বদরুল মনসুর,
প্রাউড টু বি সিলেটি ওয়েলফেয়ার ট্রাষ্ট ইউকের সভাপতি হারুনুর রশীদ, সাধারন সম্পাদক হাবিবুর রহমান রানা, ট্রেজারার এম জামাল হোসেন এবং চ্যারিটি কোডিনেটর মোহাম্মদ মকিস মনসুর সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ একযুক্ত বিবৃতিতে যুক্তরাজ্য প্রবাসী সাত ব্যবসায়ীকে গ্রেফতারে উদ্বেগ প্রকাশ এবং অবিলম্বে প্রবাসীদের মুক্তি সহ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্তের দাবি জানিয়েছেন।
বিবৃতিতে প্রাউড টু বি সিলেটি ওয়েলফেয়ার ট্রাষ্ট ইউকের
নেতৃবৃন্দ বলেন আমরা উদ্বেগের সাথে লক্ষ্য করছি যে, প্রবাস থেকে নিজেদের কষ্টার্জিত অর্থ
বিনিয়োগ করে গড়ে তোলা হোমল্যান্ড ইন্সুরেন্স কোম্পানি লিঃ এর গত ২১ সেপ্টেম্বর বার্ষিক সাধারণ সভায় অংশ নিতে লন্ডন থেকে ঢাকায় এসেছিলেন সিলেটের ওসমানীনগর উপজেলার বাসিন্দা কোম্পানির ভাইস চেয়ারম্যান জামাল মিয়া ও তার ভাই কামাল মিয়া, বিশ্বনাথের আবদুল আহাদ ও তার ভাই আবদুল হাই, ছাতকের জামাল উদ্দিন, শাহজালাল উপশহরের আবদুর রাজ্জাক ও পরিচালক আবদুর
রব নামক এই প্রবাসী সাত পরিচালক। সেখান থেকেই গ্রাহকের পলিসির টাকা আত্মসাতের
অভিযোগে গ্রেফতার করে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয় ।
এ ঘটনার বিষয়ে সুষ্ঠু তদন্তের জোর দাবি জানাচ্ছি এবং তাঁরা যদি কোন চক্রান্তের শিকার হয়ে থাকেন সেই বিষয়টি উদঘাটনে সদাশয় সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণ করে সুবিচার প্রত্যাশা করছি।
এখানে উল্লেখ্য যে গ্রাহকের পলিসির টাকা আত্মসাতের অভিযোগে কোম্পানিটির মতিঝিলের প্রধান কার্যালয় থেকে তাদের গ্রেপ্তার করে কারাগারে পাঠানো হয়। কিন্তু রহস্যজনক কারণে একই মামলার আসামি হলেও গ্রেপ্তার করা হয়নি কোম্পানিটির চেয়ারম্যান, ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও মহাব্যবস্থাপকসহ অন্য কোনো পদস্থ কর্মকর্তাকে। অভিযোগ উঠেছে বিলেত প্রবাসী এই সাত ব্যবসায়ী দেশে ফেরায় ক্ষুব্ধ হয়ে গোপনে পুলিশকে খবর দিয়ে তাদের ধরিয়ে দেওয়া হয়েছে। গ্রেপ্তারকৃতরা সবাই যুক্তরাজ্যের নাগরিক ও প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ী।
এদিকে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে কোম্পানির ভাইস চেয়ারম্যান ও ছয় পরিচালকের বিরুদ্ধে মামলা হলেও রহস্যজনক কারণে অভিযুক্ত করা হয়নি চেয়ারম্যান, ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও মহাব্যবস্থাপকসহ অন্য কোনো পদস্থ কর্মকর্তাদের। এ নিয়ে রহস্য তৈরি হয়েছে।
এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত দাবি করেছেন ব্রিটিশ বাংলাদেশীরা।

**************************************
সংবাদদাতা; বদরুল মনসুর,